চা বা কফি খেলে ঘুম হয় না কেনো? - ScienceBee প্রশ্নোত্তর

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রশ্নোত্তর দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম! প্রশ্ন-উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরস্কার, বিস্তারিত এখানে দেখুন।

+15 টি ভোট
2,204 বার দেখা হয়েছে
"লাইফ" বিভাগে করেছেন (15,520 পয়েন্ট)

8 উত্তর

+4 টি ভোট
করেছেন (15,520 পয়েন্ট)
Nishat Tasnim

চায়ে কাফেইন নামক এক ধরনের উপাদান থাকে যা আমাদের স্নায়ু তে একধরনের উদ্দীপনা সৃষ্টি করে এবং ট্যানিক এসিড থাকে যা স্নায়ুকে সজাগ রাখতে সাহায্য করে যার ফলে চা খেলে আমাদের ঘুম আসে না। তবে বেশি বেশি চা পান করলে সেক্ষেত্রে ক্যাফেইন-এর প্রভাবের প্রতি সহিষ্ণুতা বেড়ে যায় অর্থাৎ মানবদেহে এর প্রতিক্রিয়া কমে আসে।

ক্যাফেইন তেতো স্বাদযুক্ত যা পরিমান মতো গ্রহণ করলে আমাদের শরীরের অনেক উপকার করে আবার মাত্রারিক্ত গ্রহণ করলে অনেক ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

অতিরিক্ত চা কফি খেলে শুধু ঘুম চলে যাওয়া বা অপর্যাপ্ত ঘুমের কারণ হবেনা বরং এটি একজনকে দুর্বল ও অস্থির এবং উদ্বিগ্ন করে দিবে, রক্তচাপ বেড়ে যেতে পারে,হৃস্পন্দন বেড়ে যেতে পারে যা পরবর্তীতে হার্টের বিভিন্ন সমস্যা হয়ে দাঁড়াবে, বয়স্কদের হারের ক্ষয় করে এবং গর্ভবতীদের এই ক্যাফেইনের বিক্রিয়ার ফলে বদ হজমের সৃষ্টি করে, অতিরিক্ত চা পান করলে আসক্তির সৃষ্টি হয় ইত্যাদি।

অন্যদিকে,চায়ে এন্টিএক্সিডেন্ট থাকায় পরিমান মতো খেলে ক্যান্সার হওয়ার ঝুকি কমে যায় , ডায়াবেটিকস ও হৃদরোগের ঝুঁকি অনেকটাই কমিয়ে দেয়, বয়স্কদের ভুলে যাওয়া স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করে, ইহা ক্লান্তি ও অবসাদ দূর করতে সাহায্য করে,দেহে ক্ষতিকর পুঞ্জীভূত বিষাক্ত পদার্থ নিষ্কাশন করে যা মাথা ব্যাথা বা মাইগ্রেনের কষ্ট লাঘব করতে যথেষ্ট উপকারী।

মোট কথায়, যাদের ক্যাফেইন টলারেন্স ক্ষমতা কম তারা চা পান করলে তাদের (সন্ধ্যা কিংবা দিনের অন্য কোনো সময়) সহজে ঘুম ধরে না কিন্তু যাদের টলারেন্স ক্ষমতা যথেষ্ট উন্নত তারা ঘুমের আগে চা পান করলেও রাতে স্বাভাবিক ভাবেই ঘুমিয়ে যাবেন।

চা খেলে ঘুম না আসার কারণ হচ্ছে ক্যাফেইন, কিন্তু চায়ে যদি ক্যাফেইন না থাকে তবে চা খেলেও ঘুম আসে। আবার অনেক সময় চা খেলে নার্ভ শিথিল হয়, সতেজ লাগে, মেজাজ ফুরফুরে হয় যা আমাদের দ্রুত ঘুমাতে সাহায্য করে।
+4 টি ভোট
করেছেন (24,570 পয়েন্ট)
কারণ চায়ে থাকে ক্যাফেইন যা স্নায়ুতে উদ্দিপনা সৃষ্টি করেএবং চায়ে থাকে ট্যানিক এসিড যা স্নায়ুকে সজাগ রাখে। এ কারণে আমাদের ঘুম আসে না
+3 টি ভোট
করেছেন (47,410 পয়েন্ট)
সৈয়দ হাসবি -

মূলত চা/কফিতে থাকা ক্যাফেইন আমাদের ঘুমভাব কাটায়। ক্যাফেইন আমাদের শরীরের ঘুমের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় কিছু উপাদান কে ব্লক করে দেয়, যেগুলোকে ঘুমের চাবি হিসেবেও ধরা যায়, যেমন এডিনোসিন নামক মলিকিউলস। আমাদের শরীরে প্রতিনিয়ত শক্তি উৎপন্য হয় (ATP প্রক্রিয়া), এই প্রক্রিয়ায় এডিনোসিন নির্গত হয় এবং মস্তিষ্কের নিউরনে এডিনোসিনের জন্য পারফেক্ট শেইপ এর রিসেপ্টর রয়েছে, সেই রিসেপ্টরে এডিনোসিন স্থাপিত হলে একটি বায়োকেমিক্যাল রিয়েকশন হয় যার ফলে নিউরণগুলো কিছুটা ধীর হয়ে যায় এবং শরীরে মস্তিষ্কের পাঠানো গুরুত্বপূর্ণ বার্তাগুলো ধীরে পৌছায় এবং ঘুম অনুভব হয়, ক্যফেইন এর শেইপ অনেকটাই এডিনোসিন এর মতই, এগুলো নিউরণের সেই রিসেপ্টরে বসে যেখানে এডিনোসিন এর থাকার কথা ছিল, ক্যফেইন এর শেইপ হুবহু এডিনোসিন এর মত না হওয়ায় সেই বায়োক্যামিকেল রিয়েকশন আর হয় না ফলে মস্তিস্কের বার্তাও ধীর না হওয়ায় আমাদের ঘুম,ক্লান্তিভাব কেটে যায়।
+2 টি ভোট
করেছেন (47,410 পয়েন্ট)

চা কফি ডাইইউরেটিক বলেই এমন হয়।

0 টি ভোট
করেছেন (12,500 পয়েন্ট)
চা-কফি খেলে স্নায়ু উদ্দীপ্ত হয়। আর, স্নায়ুকে উদ্দীপ্ত করার এই কাজটা করে ক্যাফেইন। চা-কফিতে ক্যাফেইনের মাত্রা ভিন্ন হয়। তবে গড়ে ১০০ গ্রাম চা-তে প্রায় ১১ গ্রাম ক্যাফেইন থাকে, আর কফিতে প্রতি ১০০ গ্রামে থাকে ৪০ গ্রাম। সেজন্যই কফি ঘুম তাড়ানো বা স্নায়ু উদ্দীপ্ত করার কাজে বেশি কার্যকরী।

খাওয়ার পর ক্যাফেইন দ্রুত রক্তের মাধ্যমে যকৃতে চলে যায়। যকৃতে গিয়ে ক্যাফেইন ভেঙে যায়। তারপর তা প্রভাব ফেলে বিভিন্ন অঙ্গে। তবে এর মূল প্রভাব মস্তিষ্কে। অ্যাডেনোসিন নামে এক ধরনের নিউরোট্রান্সমিটার আছে মস্তিষ্কে। এটি মস্তিষ্ককে শিথিল করে দেয়। ফলে দেহে ক্লান্তি বোধ হয়। সারাদিন ধরে এই অ্যাডেনোসিনের মাত্রা বেড়ে চলে। এক সময় তাই ক্লান্তিতে ঘুম চলে আসে। ক্যাফেইন এই অ্যাডেনোসিনকে আটকে দেয়। ফলে শরীর ক্লান্ত হওয়ার অনুভূতি হারিয়ে ফেলে।

পাশাপাশি, ক্যাফেইন রক্তে অ্যাড্রিনালিন ক্ষরণের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। তীব্র আবেগ বা উত্তেজনা বোধের জন্য দায়ী এই অ্যাড্রিনালিন হরমোন। এছাড়াও, এটি ডোপামিন এবং নর-এপিনেফ্রিন ক্ষরণের মাত্রাও বাড়িয়ে দেয়। পৃথিবীর প্রায় ৮০ শতাংশ মানুষ প্রতিদিন অন্তত একটি ক্যাফেইনযুক্ত খাবার খান বা পানীয় পান করেন।

গবেষণা থেকে দেখা গেছে, ক্যাফেইনের বেশ কিছু উপকারও আছে। এটি অ্যালঝাইমার বা এ ধরনের স্নায়বিক রোগ হওয়ার হার কমিয়ে দেয়। তবে অতিরিক্ত ক্যাফেইন গ্রহণে শরীরে এক ধরনের ক্যাফেইননির্ভরতা তৈরি হয়। তখন ক্যাফেইন না খেলে মাথা ব্যথা, অস্বস্তি লাগা, হৃৎকম্পনের হার বেড়ে যাওয়া ইত্যাদি সমস্যা হতে পারে। সেজন্য অতিরিক্ত চা-কফি খাওয়া বা এর উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়া উচিত নয় বলেই বলেন পুষ্টিবিশেষজ্ঞেরা। সূত্র: জি নিউজ
0 টি ভোট
করেছেন (28,750 পয়েন্ট)
চায়ে কাফেইন নামক এক ধরনের উপাদান থাকে যা আমাদের স্নায়ু তে একধরনের উদ্দীপনা সৃষ্টি করে এবং ট্যানিক এসিড থাকে যা স্নায়ুকে সজাগ রাখতে সাহায্য করে যার ফলে চা খেলে আমাদের ঘুম আসে না। তবে বেশি বেশি চা পান করলে সেক্ষেত্রে ক্যাফেইন-এর প্রভাবের প্রতি সহিষ্ণুতা বেড়ে যায় অর্থাৎ মানবদেহে এর প্রতিক্রিয়া কমে আসে।
0 টি ভোট
করেছেন (6,030 পয়েন্ট)
চা বা কফিতে ক্যাফেইন থাকে।  ক্যাফেইন  আমাদের ঘুমের ভাব কমিয়ে দেয়। এর ফলে আমাদের শরীরে এনার্জি তৈরি হয়। আমাদের বডি রিফ্রেশ হয়।  তবে অতিরিক্ত চা বা কফি পান করা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।
0 টি ভোট
করেছেন (10,030 পয়েন্ট)
চা বা কফিতে ক্যাফেইন থাকে ।আর এটি আমাদের ঘুমের আভাস দূর করে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+7 টি ভোট
5 টি উত্তর 246 বার দেখা হয়েছে
+9 টি ভোট
4 টি উত্তর 801 বার দেখা হয়েছে
+10 টি ভোট
2 টি উত্তর 169 বার দেখা হয়েছে
17 জানুয়ারি 2021 "প্রাণিবিদ্যা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Abu Reza (10,280 পয়েন্ট)
+7 টি ভোট
5 টি উত্তর 145 বার দেখা হয়েছে
03 জানুয়ারি 2021 "স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Samsun Nahar Priya (47,410 পয়েন্ট)
+2 টি ভোট
4 টি উত্তর 211 বার দেখা হয়েছে
03 অক্টোবর 2021 "স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন NAYEM MOLLAH (1,530 পয়েন্ট)

9,379 টি প্রশ্ন

15,656 টি উত্তর

4,546 টি মন্তব্য

123,719 জন সদস্য

67 জন অনলাইনে রয়েছে
6 জন সদস্য এবং 61 জন গেস্ট অনলাইনে
  1. Md. Ariful Haque

    1690 পয়েন্ট

  2. Maksud

    650 পয়েন্ট

  3. azratuni

    630 পয়েন্ট

  4. Jihadul Amin

    620 পয়েন্ট

  5. স্বপ্নিল

    560 পয়েন্ট

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত বিজ্ঞান প্রশ্নোত্তর সাইট সায়েন্স বী QnA তে আপনাকে স্বাগতম। এখানে যে কেউ প্রশ্ন, উত্তর দিতে পারে। উত্তর গ্রহণের ক্ষেত্রে অবশ্যই একাধিক সোর্স যাচাই করে নিবেন। অনেকগুলো, প্রায় ২০০+ এর উপর অনুত্তরিত প্রশ্ন থাকায় নতুন প্রশ্ন না করার এবং অনুত্তরিত প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রতিটি উত্তরের জন্য ৪০ পয়েন্ট, যে সবচেয়ে বেশি উত্তর দিবে সে ২০০ পয়েন্ট বোনাস পাবে।


Science-bee-qna

সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় ট্যাগসমূহ

মানুষ পানি ঘুম এইচএসসি-উদ্ভিদবিজ্ঞান এইচএসসি-প্রাণীবিজ্ঞান জীববিজ্ঞান রোগ চোখ পৃথিবী - শরীর পদার্থ রক্ত আলো মোবাইল কী ক্ষতি চিকিৎসা এইচএসসি-আইসিটি চুল পদার্থবিজ্ঞান মহাকাশ বৈজ্ঞানিক মাথা সূর্য প্রাণী পার্থক্য প্রযুক্তি স্বাস্থ্য কেন খাওয়া ডিম গরম রাসায়নিক কারণ #biology বৃষ্টি #জানতে শীতকাল রং বিজ্ঞান চাঁদ গণিত উপকারিতা কাজ বিদ্যুৎ আগুন লাল রাত সাদা সাপ #ask দুধ উপায় ব্যাথা শক্তি খাবার গাছ ভয় আবিষ্কার মশা মনোবিজ্ঞান মাছ হাত শব্দ ঠাণ্ডা কি গ্রহ কালো বৈশিষ্ট্য সমস্যা উদ্ভিদ মস্তিষ্ক রঙ পা হলুদ স্বপ্ন মন রসায়ন মেয়ে বাতাস ভাইরাস #science আম পাতা ব্যথা মৃত্যু দাঁত আকাশ কান্না পাখি চার্জ গ্যাস ঔষধ বিস্তারিত হরমোন বিড়াল তাপমাত্রা নাক ফোবিয়া
...