ঘুমের মধো হঠাৎ পরে যাই এমন মনে হয় কেন?? - ScienceBee প্রশ্নোত্তর

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রশ্নোত্তর দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম! প্রশ্ন-উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরস্কার, বিস্তারিত এখানে দেখুন।

+2 টি ভোট
1,023 বার দেখা হয়েছে
"মনোবিজ্ঞান" বিভাগে করেছেন (170 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (24,120 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন
অনেক সময় ঘুমের মধ্যে আমাদের মনে হয় আমরা উঁচু কোথাও থেকে পড়ে যাচ্ছি। তখন একটা ঝাঁকুনি দিয়ে ঘুম ভেঙে যায়।

চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় ঝাঁকুনি দিয়ে ঘুম ভেঙ্গে যাওয়াকে
বলে Hypnic Jerk বা Myoclonic Jerk বা Sleep Start। হিপনিক জার্ক হচ্ছে এক বরনের মাংসপেশির  অলৌকিক টান যা  মানুষ ঘুমানোর পর ঘটে, একে মায়ােক্লোনাস বলে।
এমন ঘটনা মানুষের ঘুম ও জাগরণ এর মাঝে ঘটে। হিপনিক
জাঁক কেন হয় তার কোন নির্দিষ্ট কারণ জানা যায়নি।
বিজ্ঞানীদের ধারণা মায়োক্লোনাস এর উৎপত্তি মস্ত্তিষ্কে। এর সৃষ্টি
মস্তিষ্কের সেরেব্রাল কর্টেক্স বা মস্তিষ্কের যে অংশের জন্য আপনি চমকে ওঠেন তা থেকে। এমন হতে পারে যে জাগ্রত অবস্থা
থেকে যখন মানুষ ঘুমন্ত অবস্থায় যায় তখুন এই স্থানেের
নিউরােট্রান্সমিটার এর অস্থিতিশীলতার জন্য হিপনিক জার্ক
ঘটে। তাছাড়া যেসব কারণে হিপনিক জার্ক হতে পারে,

১, ক্যাফেইন, নিকোটিন, চা কফি ও অন্যান্য উত্তেজক পানীয়
মস্তিষ্ক ও দেহকে জাগিয়ে রাখে।মাত্রাতিরিক্ত, বিশেষ করে
বিকেল বা সন্ধ্যায় এইসব পানীয় গ্রহন করলে নিদ্রাহীনতা হয়ে
পারে। পাশাপাশি পানীয়তে থাকা রাসায়নিকের প্রভাবে হিপনিক
জার্ক হতে পারে।

২. অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা ও মানসিক চাপ এর মধ্যে থাকালে
স্বাভাবিভাবেই ঘুমের সমস্যা হয়। এর কারো মানসিক চাপ এর
ফলে মানুষের মস্ত্তিষ্ক  সক্রিয় থাকে এবং নানা ধরনের চিন্তা মাথায় ঘুর ঘুর করে। এর ফলে ঘুমের মাঝে ঝাঁকুলি বা হিপনিক
জাক এর মতো সমস্যা হতে পারে।

৩, দুশ্চিন্তার মতাে ব্যায়ামও মস্তিষ্ককে সক্রিয় ও সতেজ রাখে।
তবে সকাল বা দিনে ব্যায়াম না করে রাতে ব্যায়াম করলে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটে। অতিরিক্ত শারীরিক পরিশ্রম ও রাতে
ঘুমাতে যাওয়ার আগে ব্যায়াম করলে হিপনিক জার্ক হতে পারে।

৪. রাত জাগার অভ্যাস, অতিরিক্ত পরিশ্রম, রাতে ঘুমানাের আগে
ফোন"ল্যাপটপ ব্যবহার, দীর্ঘ সময় নেট ব্রাউজিং, খাটাখাটুনি
কাৱ ঘুমালো, ইনসােমনিয়া বা নিদ্রাহীনতায় যারা ভুগেন তাদের
হিপনিক জার্ক হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

তাছাড়া শরীরে ক্যালসিয়াম, মাগনেসিয়াম ও আয়রনের অভাব;
ঘুমের মধ্যে হাতে পায়ে ঝিঁঝিঁ ; উচ্চশব্দ ইত্যাদির প্রভাবে
হিপনিক জার্ক হতে পারে। সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা ঘুমের মধ্যে
ঝাঁকুনির কারণ হিসেবে ইভােলিউশন ভিত্তিক কিছু মতবাদ
দিয়েছেন। এছাড়া হিপনিক জার্ক এর কারণ হিসেবে
স্নায়ুবিজ্ঞানীদের কিছু থিওরিও আছে। নির্দিষ্ট কারণ এখনাে
পর্যন্ত জানা যায়নি।

হিপনিক জার্ক এর ধরণ একেক মানুষের ক্ষেত্রে একেক রকম
হাত পারে। সাধারণত হিপনিক জার্ক হলে ঘুমের মধ্যে পড়ে যাওয়ার অনুভূতি হয়, আলাের ঝলকানি বা অদ্ভুত স্বপ্ন দেখা  বা হ্যালুসিনেশন হয়, কিছু  ভেঙে যাওয়ার মতাে শব্দ হওয়া।

ঝাঁকুনি দিয়ে ধুম ভেঙে গেলে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। হিপনিক জার্ক প্রতিরোধের জন্য জীবনযাত্রায় পরিবর্তন আনা আবশ্যক। যেমন, মেডিটেশন করা, নিজের মূল মস্তিষ্ক কে চিন্তামুক্ত রাখা, নিয়ম করে ঘুমানো, রাতে ব্যায়াম করা, কাফেইন এর মতো পানীয় কম খাওয়া ইত্যাদি ।

 

by নিশাত তাসনিম(Science bee)

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+1 টি ভোট
1 উত্তর 657 বার দেখা হয়েছে
01 সেপ্টেম্বর 2021 "মনোবিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Shraban Dey (170 পয়েন্ট)
+1 টি ভোট
1 উত্তর 110 বার দেখা হয়েছে
29 এপ্রিল "জীববিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Annoy Debnath (2,790 পয়েন্ট)

8,967 টি প্রশ্ন

14,931 টি উত্তর

4,490 টি মন্তব্য

104,416 জন সদস্য

65 জন অনলাইনে রয়েছে
7 জন সদস্য এবং 58 জন গেস্ট অনলাইনে
  1. রেয়াজুর রহমান রাজ

    4270 পয়েন্ট

  2. Jihadul Amin

    1390 পয়েন্ট

  3. Sazzad Ahammad Fahim

    1190 পয়েন্ট

  4. Anindo Brody

    810 পয়েন্ট

  5. Anupom

    670 পয়েন্ট

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত বিজ্ঞান প্রশ্নোত্তর সাইট সায়েন্স বী QnA তে আপনাকে স্বাগতম। এখানে যে কেউ প্রশ্ন, উত্তর দিতে পারে। উত্তর গ্রহণের ক্ষেত্রে অবশ্যই একাধিক সোর্স যাচাই করে নিবেন। অনেকগুলো, প্রায় ২০০+ এর উপর অনুত্তরিত প্রশ্ন থাকায় নতুন প্রশ্ন না করার এবং অনুত্তরিত প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রতিটি উত্তরের জন্য ৪০ পয়েন্ট, যে সবচেয়ে বেশি উত্তর দিবে সে ২০০ পয়েন্ট বোনাস পাবে।


Science-bee-qna

সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় ট্যাগসমূহ

মানুষ পানি ঘুম এইচএসসি-উদ্ভিদবিজ্ঞান এইচএসসি-প্রাণীবিজ্ঞান জীববিজ্ঞান রোগ পৃথিবী চোখ - শরীর পদার্থ রক্ত কী মোবাইল ক্ষতি আলো এইচএসসি-আইসিটি চিকিৎসা চুল মাথা মহাকাশ পদার্থবিজ্ঞান সূর্য বৈজ্ঞানিক প্রাণী স্বাস্থ্য প্রযুক্তি পার্থক্য কেন গরম কারণ ডিম রং #জানতে শীতকাল গণিত উপকারিতা খাওয়া কাজ #biology বৃষ্টি আগুন রাসায়নিক চাঁদ বিদ্যুৎ বিজ্ঞান রাত সাপ লাল সাদা উপায় খাবার দুধ ভয় আবিষ্কার শক্তি #ask গাছ ব্যাথা মশা ঠাণ্ডা হাত কি মনোবিজ্ঞান মাছ শব্দ গ্রহ কালো বৈশিষ্ট্য উদ্ভিদ সমস্যা পা রসায়ন ভাইরাস মেয়ে মস্তিষ্ক হলুদ স্বপ্ন মন আম পাখি বাতাস পাতা ব্যথা কান্না বিস্তারিত দাঁত গ্যাস বিড়াল রঙ নাক চার্জ হরমোন আকাশ তাপমাত্রা #science ঔষধ মৃত্যু চা
...