সূর্যে র্সৌরকলংক কেন হয় ? - ScienceBee প্রশ্নোত্তর

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রশ্নোত্তর দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম! প্রশ্ন-উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরস্কার, বিস্তারিত এখানে দেখুন।

0 টি ভোট
228 বার দেখা হয়েছে
"পদার্থবিজ্ঞান" বিভাগে করেছেন (970 পয়েন্ট)

3 উত্তর

+1 টি ভোট
করেছেন (1,450 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর
সৌরকলংক হল সূর্যের পৃষ্ঠের উপর অস্থায়ী অন্ধকার দাগ যা এর চৌম্বক ক্ষেত্রের তারতম্যের কারণে ঘটে। এই দাগগুলি অন্ধকার দেখায় কারণ এগুলি আশেপাশের এলাকার তুলনায় শীতল, যদিও এই প্রসঙ্গে "ঠান্ডা" এর অর্থ হল তারা অত্যন্ত গরম।

সূর্যের দাগের গঠন সূর্যের চৌম্বকীয় কার্যকলাপের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিত। এখানে কিভাবে এটা কাজ করে:

1. চৌম্বক ক্ষেত্র রেখা: সূর্যের বাইরের স্তর, ফটোস্ফিয়ার, একটি জটিল এবং গতিশীল চৌম্বক ক্ষেত্র ধারণ করে। এই ক্ষেত্রটি সূর্যের অভ্যন্তরে চার্জযুক্ত কণার গতি দ্বারা তৈরি হয়।

2চৌম্বকীয় ফ্লাক্স টিউব: সূর্যের পৃষ্ঠের চৌম্বক ক্ষেত্র রেখাগুলি নির্দিষ্ট এলাকায় ঘনীভূত হতে পারে, যাকে চৌম্বকীয় ফ্লাক্স টিউব বলা হয়।

3. পরিচলনের বাধা: এই ফ্লাক্স টিউবের শক্তিশালী চৌম্বক ক্ষেত্রগুলি সূর্যের বাইরের স্তরে পরিচলন প্রক্রিয়াকে বাধা দিতে পারে। পরিচলন সাধারণত সূর্যের কেন্দ্র থেকে তার পৃষ্ঠে তাপ পরিবহন করে, কিন্তু যখন এটি বাধাপ্রাপ্ত হয়, তখন এলাকাটি শীতল হয়ে যায়।

4. অন্ধকার দাগ: নিষেধিত পরিচলনের ফলে সূর্যের পৃষ্ঠে শীতল অঞ্চল দেখা দেয়, যা অন্ধকার দেখায়। এই সূর্যের দাগ।

সূর্যের দাগগুলি স্থায়ী নয় এবং প্রায় 11 বছরের চক্র যাকে সৌর চক্র বলা হয় তার আকার এবং সংখ্যায় পরিবর্তিত হতে পারে। উচ্চ সৌর কার্যকলাপের সময়কালে, সূর্যের দাগের সংখ্যা বৃদ্ধি পায় এবং কম সৌর কার্যকলাপের সময়কালে, তারা হ্রাস পায়। এই চক্রগুলি সূর্যের চৌম্বক ক্ষেত্রের পরিবর্তনের সাথে যুক্ত, এবং তারা মহাকাশ আবহাওয়া এবং পৃথিবীর জলবায়ুর উপর প্রভাব ফেলতে পারে।
+1 টি ভোট
করেছেন (5,060 পয়েন্ট)
Sunspot বা সূর্যের কলঙ্ক আসলে অন্তস্থলে থাকা একটি গভীর অন্ধকার গহ্বর, চাঁদের কলঙ্কের মতোই। গনগনে আগুনের আঁচে তপ্ত সূর্যের অন্তস্থলের এই গহ্বরের তাপমাত্রা কিন্তু হিমাঙ্কের নিচে। ক্রমাগত সংকোচনের ফলে সেখানে বিস্ফোরণ ঘটে। সূর্যে এ ধরনের সবচেয়ে বড় গহ্বরটির নাম AR2770।

 

বিজ্ঞানীদের ধারণা, সেখানেই ঘটে গিয়েছে প্রকাণ্ড বিস্ফোরণ। যার ফলে তৈরি হয়েছে সৌরশিখা (Solar Flare)। এই সৌরশিখা আসলে বড়সড় চৌম্বকীয় তরঙ্গ। একে সৌরঝড় (Solar Storm)ও বলা হয়। আর সূর্যেকার মধ্যেকার এই প্রাকৃতিক ঘটনাকে বলা হয় – Coronal Mass Ejection (CME)। অন্যান্যবার সৌরকলঙ্কে বিস্ফোরণের ফলে যে মাত্রায় শক্তি বা সৌরশিখা তৈরি হয়, এবার তা কয়েকগুণ বেশি। আর সেটাই চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। সৌরশিখার চৌম্বক তরঙ্গের প্রভাব বায়ুমণ্ডলে ইতিমধ্যেই পড়ছে। অন্য সময়ে সূর্যের সবচেয়ে কাছে যে বায়ুস্তর থাকে, সেখানেই আটকে যায় সৌরশিখার শক্তি। কিন্তু এবার কয়েকগুণ বেশি শক্তি উৎপন্ন হওয়ায় তা পৃথিবীর কাছাকাছি স্তরে পৌঁছে যাওয়ার আশঙ্কা প্রবল। যার ফলেই GPS, পাওয়ার গ্রিডের যোগাযোগ ব্যবস্থা ব্যাহত হতে পারে।
0 টি ভোট
করেছেন (4,260 পয়েন্ট)

সূর্যের পৃষ্ঠের তাপমাত্রা প্রায় ৫,৫০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এই তাপমাত্রায় সূর্যের পৃষ্ঠের গ্যাসগুলি উত্তপ্ত হয়ে ফোটন নির্গত করে। সূর্যের পৃষ্ঠের এই স্তরকে বলা হয় ফটোস্ফিয়ার।

সৌরকলংক হলো ফটোস্ফিয়ারের কিছু কিছু জায়গা যেখানে তাপমাত্রা অন্যান্য অংশের তুলনায় কম থাকে। এই কম তাপমাত্রার কারণে সৌরকলংক দেখতে কালো দেখায়।

সৌরকলংকের সৃষ্টি হয় সূর্যের চৌম্বক ক্ষেত্রের কারণে। সূর্যের অভ্যন্তরে প্রচণ্ড চৌম্বক শক্তি বিদ্যমান। এই চৌম্বক শক্তি সূর্যের পৃষ্ঠের গ্যাসগুলিকে প্রভাবিত করে। চৌম্বক ক্ষেত্রের প্রভাবে সূর্যের পৃষ্ঠের কিছু কিছু জায়গায় গ্যাসগুলি উত্তপ্ত হয়ে ফোটন নির্গত করতে পারে না। ফলে সেই জায়গাগুলির তাপমাত্রা কমে যায় এবং সৌরকলংক তৈরি হয়।

সৌরকলংক সাধারণত সূর্যের উত্তর ও দক্ষিণ মেরুতে বেশি দেখা যায়। সৌরকলংকের আকার কয়েক হাজার কিলোমিটার থেকে কয়েক লক্ষ কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে।

সৌরকলংকের কিছু বৈশিষ্ট্য হলো:

  • সৌরকলংকের আকার ও সংখ্যা সূর্যের চক্রের সাথে পরিবর্তিত হয়। সূর্যের চক্রের সর্বোচ্চ পর্যায়ে সৌরকলংকের সংখ্যা বেশি থাকে।
  • সৌরকলংকের চারপাশে চৌম্বক ক্ষেত্রের বিন্যাস জটিল।
  • সৌরকলংক থেকে সৌরঝড়ের সৃষ্টি হয়। সৌরঝড়ের ফলে পৃথিবীর টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা, বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ও মহাকাশযানের ক্ষতি হতে পারে।

সৌরকলংকের বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা নিয়ে বিজ্ঞানীরা এখনও গবেষণা করছেন।

আশা করি আপনি উত্তরটি পেয়েছেন। ধন্যবাদ!

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+1 টি ভোট
3 টি উত্তর 383 বার দেখা হয়েছে
23 জুন 2023 "জ্যোতির্বিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Rafikul Al Imran (5,340 পয়েন্ট)
0 টি ভোট
1 উত্তর 200 বার দেখা হয়েছে
+1 টি ভোট
1 উত্তর 92 বার দেখা হয়েছে

10,750 টি প্রশ্ন

18,409 টি উত্তর

4,733 টি মন্তব্য

244,533 জন সদস্য

26 জন অনলাইনে রয়েছে
3 জন সদস্য এবং 23 জন গেস্ট অনলাইনে
  1. MIS

    1390 পয়েন্ট

  2. shuvosheikh

    420 পয়েন্ট

  3. তানভীর রহমান ইমন

    160 পয়েন্ট

  4. unfortunately

    130 পয়েন্ট

  5. Muhammad_Alif

    130 পয়েন্ট

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত বিজ্ঞান প্রশ্নোত্তর সাইট সায়েন্স বী QnA তে আপনাকে স্বাগতম। এখানে যে কেউ প্রশ্ন, উত্তর দিতে পারে। উত্তর গ্রহণের ক্ষেত্রে অবশ্যই একাধিক সোর্স যাচাই করে নিবেন। অনেকগুলো, প্রায় ২০০+ এর উপর অনুত্তরিত প্রশ্ন থাকায় নতুন প্রশ্ন না করার এবং অনুত্তরিত প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রতিটি উত্তরের জন্য ৪০ পয়েন্ট, যে সবচেয়ে বেশি উত্তর দিবে সে ২০০ পয়েন্ট বোনাস পাবে।


Science-bee-qna

সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় ট্যাগসমূহ

মানুষ পানি ঘুম পদার্থ - জীববিজ্ঞান এইচএসসি-উদ্ভিদবিজ্ঞান এইচএসসি-প্রাণীবিজ্ঞান পৃথিবী চোখ রোগ রাসায়নিক শরীর রক্ত আলো #ask মোবাইল ক্ষতি চুল কী চিকিৎসা পদার্থবিজ্ঞান সূর্য #science প্রযুক্তি স্বাস্থ্য প্রাণী বৈজ্ঞানিক মাথা গণিত মহাকাশ পার্থক্য এইচএসসি-আইসিটি #biology বিজ্ঞান খাওয়া গরম শীতকাল #জানতে কেন ডিম চাঁদ বৃষ্টি কারণ কাজ বিদ্যুৎ রাত রং উপকারিতা শক্তি লাল আগুন সাপ মনোবিজ্ঞান গাছ খাবার সাদা আবিষ্কার দুধ উপায় হাত মশা মাছ ঠাণ্ডা মস্তিষ্ক শব্দ ব্যাথা ভয় বাতাস স্বপ্ন তাপমাত্রা গ্রহ রসায়ন উদ্ভিদ কালো পা কি বিস্তারিত রঙ মন পাখি গ্যাস সমস্যা মেয়ে বৈশিষ্ট্য হলুদ বাচ্চা সময় ব্যথা মৃত্যু চার্জ অক্সিজেন ভাইরাস আকাশ গতি দাঁত আম হরমোন বাংলাদেশ বিড়াল
...