মুখে বিচি হইছিলো তার পর Darmasol-N Ointment দিলে ২ই দিনে বিচি সেরে গেছে কিন্তু মুখে কালো দাগ হয়ে গেছে যেটা প্রায় ২ই সপ্তাহ হয়ে গেলো কিন্তু ওই কালো দাগের কোনো পরিবর্তন হলো না এখন আমি কিভাবে মুখ থেকে দাগ দুর করতে পারি? - ScienceBee প্রশ্নোত্তর

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রশ্নোত্তর দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম! প্রশ্ন-উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরস্কার, বিস্তারিত এখানে দেখুন।

+3 টি ভোট
107 বার দেখা হয়েছে
"স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে করেছেন (370 পয়েন্ট)
পূনঃপ্রদর্শিত করেছেন

2 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (140 পয়েন্ট)
..
অনেক কারণেই মুখে কালো দাগ বা ছোপ পড়ে থাকে৷ সূর্যের আলোতে বেশি বেরোলে মুখে কালো ছোপ পড়ে৷ গর্ভাবস্থায়, সন্তান প্রসবের পর বা জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি খেলে মুখের দুই পাশে মেছতার দাগ পড়ে৷ আবার এমনিতেই বয়সের সঙ্গে সঙ্গে কারও মুখে দাগ পড়তে পারে৷ এসব দাগ দূর করার আধুনিক চিকিৎসাপদ্ধতি আছে৷ এ ছাড়া দরকার বাড়তি কিছু যত্ন৷
প্রচুর ভিটামিন সি চাই
সাইট্রাস ফল বা টক ফলে আছে প্রচুর ভিটামিন সি৷ আর ভিটামিন সি বহিঃ ত্বকের মৃত কোষ ঝরিয়ে ফেলে নতুন কোষ তৈরিতে সাহায্য করে৷ ফলে নতুন করে ত্বক সজীব ও উজ্জ্বল দেখায়৷ টমেটো, লেবু, মালটা, পেঁপে ইত্যাদিতে রয়েছে ভিটামিন সি৷ নিয়মিত প্রতিদিন তাই পাতে কিছু ফলমূল রাখুন৷ এসব ফলের রস সরাসরি ত্বকেও লাগাতে পারেন৷ যেমন: একটি বাটিতে লেবুর রস বা ফলের (কমলা, আঙুর) রস নিয়ে তুলা ভিজিয়ে মুখে লাগানো যায়৷ তারপর ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন৷ এতে ত্বকের মরা কোষ দ্রুত পরিষ্কার হবে৷
প্রকৃতির সান্নিধ্য
পেঁপেতে আছে পেপটিন এনজাইম, যা ত্বকের জন্য উপকারী৷ এই পেপটিন মৃত কোষ সরাতে ও নতুন কোষ গজাতে সাহায্য করে৷ আবার ঘৃতকুমারীর রসেও আছে প্রচুর প্রোটিন ও এমন উপাদান, যা ত্বকের আর্দ্রতা রক্ষা করে, রোদে পোড়া দাগ দূর করে৷ এই প্রাকৃতিক উপাদান বাজারের প্রচলিত অনেক দামি ফেসওয়াশের চেয়ে ভালো কাজ দিতে পারে৷
ভিটামিন ই
ভিটামিন ই একটি শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট৷ এটিÿক্ষতিগ্রস্ত ত্বককে সারিয়ে তোলে ও সহজে বুড়িয়ে যেতে দেয় না৷ বাদাম, সূর্যমুখী তেল, ডিম, কলিজা ইত্যাদিতে ভিটামিন ই আছে৷ প্রচুর ভিটামিন ই ত্বক ও চুলের স্বাস্থ্যের জন্য দরকার৷
চিকিৎসা
ত্বক বিশেষজ্ঞরা দাগ ওঠাতে নানা পদ্ধতির পিলিং (ত্বককে মসৃণ) করে থাকেন৷ পিলিং করলে ত্বক উজ্জ্বল হয়৷ এটি বেশ দ্রুত ও ভালো কাজ করে৷ তবে এ জন্য চিকিৎসকের সাহায্য ও পরামর্শ প্রয়োজন৷
কিছু কথা মনে রাখুন
দাগ নিয়ে হতাশ হবেন না, ধৈর্য ধরে চিকিৎসা করুন৷ আজেবাজে টোটকা পদ্ধতি না বুঝে ব্যবহার করবেন না৷ কসমেটিক ব্যবহারে সব সময় ভালো ব্র্যান্ড বেছে নিন৷ প্রচুর পানি পান করুন৷ নিয়মিত সানব্লক ব্যবহার করুন৷ চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া হাইড্রোকুইনোন-জাতীয় ওষুধ খাবেন না৷
চর্ম বিভাগ, বারডেম হাসপাতাল
0 টি ভোট
করেছেন (140 পয়েন্ট)
কীভাবে প্রাকৃতিকভাবে পিম্পলের দাগ কমানো যায়
1. কমলার খোসার গুঁড়া:
কমলা ভিটামিন সি-এর একটি অত্যাবশ্যক উৎস। এটি খাওয়ার ফলে সত্যিই আশ্চর্যজনক স্বাস্থ্য এবং ত্বকের উপকারিতা রয়েছে। সাইট্রিক অ্যাসিড দাগ হালকা করতে এবং ত্বক উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে। কমলালেবুর খোসার গুঁড়া এবং মধু সমান পরিমাণে মিশিয়ে আক্রান্ত স্থানে লাগান ভালো ফলাফলের জন্য। এটি 15-20 মিনিটের জন্য রাখুন এবং হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। বিকল্প দিনে এই পদ্ধতিটি পুনরাবৃত্তি করুন।
2. নারকেল তেল
এটি একটি জাদুকরী উপাদান যা ত্বকের যেকোনো ধরনের রোগের চিকিৎসা করতে পারে। এটি ব্যাকটেরিয়ারোধী এবং প্রদাহরোধী। এটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলির সাথে ভিটামিন A এবং K এর সংমিশ্রণ যা পোড়ার চিকিত্সা করতে পারে এবং আপনার ত্বককে সমৃদ্ধ করতে পারে। আপনার প্রভাবিত এলাকায় তেল প্রয়োগ করুন এবং ভাল ফলাফলের জন্য এটি সারারাত রেখে দিন। এটি উদ্বেগ ছাড়াই প্রতিদিন ব্যবহার করা যেতে পারে।
3. অ্যালোভেরা
এটি দাগ দূর করা সহ শরীরের সমস্ত অবস্থার নিরাময় হিসাবে অসাধারণভাবে কাজ করে। এটি একটি অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান যা ত্বকের সংক্রমণ প্রতিরোধ করে। এটি কোন চিহ্ন ছাড়াই ত্বক এবং ক্ষতকে প্রশমিত করে। এটি আমাদের ব্রণের দাগ দূর করার একটি কার্যকর উপায়। এটি দ্রুত গতিতে নিরাময়ে সহায়তা করে। এটি উদ্ভিদ থেকে বের করে সরাসরি দাগের উপর প্রয়োগ করা যেতে পারে। একটি পুরু স্তর প্রয়োগ করুন এবং এটি সারারাত থাকতে দিন। দ্রুত ফলাফলের জন্য এটি প্রতিদিন পুনরাবৃত্তি করুন।
4. Baking Soda
এটি একটি কার্যকর ত্বকের এক্সফোলিয়েটর যা আপনার ত্বককে হাইড্রেটেড রাখে। বেকিং সোডার প্রতিদিন ব্যবহার করা  ত্বকের  কালো দাগ থেকে মুক্তি পেতে সাহায্য করতে পারে। এটি ত্বকের পিএইচ ভারসাম্য পুনরুদ্ধারের জন্যও উপকারী, যা পিম্পল চিহ্ন এবং দাগ প্রতিরোধ করে। জলের সাথে বেকিং সোডা একটি সামঞ্জস্যপূর্ণ পেস্ট তৈরি করুন। আপনার দাগের উপর এটি প্রয়োগ করুন এবং এটি শুকিয়ে দিন। 10-15 মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।
5. লেবুর রস
এটি ভিটামিন সি সমৃদ্ধ যা দাগ দূর করতে এবং হালকা করতে সাহায্য করে। একটি ছোট পাত্রে লেবুর রস ছেঁকে নিন এবং হয় একটি তুলোর প্যাড বা আপনার আঙ্গুলের সাহায্যে দাগের উপর লাগান। 10-15 মিনিটের জন্য রেখে দিন এবং হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। আপনার হাত যেন পরিষ্কার থাকে তা নিশ্চিত করুন এবং সর্বদা একটি তাজা লেবু ব্যবহার করুন।
6. Castor Oil
এটি ভিটামিন ই এবং ওমেগা -3 ফ্যাটি অ্যাসিডের সাথে অন্তর্ভুক্ত। এটি ক্ষতিগ্রস্থ ত্বক মেরামত করে এবং নতুন কোষের বৃদ্ধিকে ছাড়িয়ে যায়। এটি পিগমেন্টেশনের বিরুদ্ধে লড়াই করে এবং ত্বককে সমৃদ্ধ করে। আক্রান্ত স্থানে তেল লাগিয়ে সারারাত রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
7. হলুদ
এটি একটি জৈব এবং একটি প্রাচীনতম ঔষধি উপাদান যা প্রদাহ বিরোধী। এটি পিগমেন্টেশন কমায় এবং ত্বককে হালকা করে। ১ চা চামচ হলুদের সাথে ১ চা চামচ লেবুর রস মেশান। একটি মাস্ক হিসাবে দাগ বা আপনার মুখের উপর মিশ্রণ প্রয়োগ করুন এবং এটি তার আশ্চর্য কাজ করতে দিন। 30 মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

আপনার দিনে দুবার আপনার মুখ ধোয়া উচিত এবং নিয়মিত এক্সফোলিয়েট করা উচিত, যা আটকে থাকা এবং মৃত ত্বকের কোষগুলি থেকে মুক্তি পেতে সহায়তা করে।পিম্পল ব্রেকআউটের সময়, আপনার কখনই এটি স্পর্শ করা বা পপ করা উচিত নয়।হাইজিন বজায় রাখা হল ব্রণের দাগ প্রতিরোধ করার সবচেয়ে সহজ উপায়।

Source;https://swirlster.ndtv.com/beauty/how-to-remove-pimple-marks-7-home-remedies-for-spotless-skin-2232105

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+1 টি ভোট
1 উত্তর 73 বার দেখা হয়েছে

8,957 টি প্রশ্ন

14,918 টি উত্তর

4,489 টি মন্তব্য

103,672 জন সদস্য

90 জন অনলাইনে রয়েছে
3 জন সদস্য এবং 87 জন গেস্ট অনলাইনে
  1. রেয়াজুর রহমান রাজ

    3650 পয়েন্ট

  2. Jihadul Amin

    1390 পয়েন্ট

  3. Sazzad Ahammad Fahim

    1190 পয়েন্ট

  4. Anindo Brody

    810 পয়েন্ট

  5. Anupom

    670 পয়েন্ট

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত বিজ্ঞান প্রশ্নোত্তর সাইট সায়েন্স বী QnA তে আপনাকে স্বাগতম। এখানে যে কেউ প্রশ্ন, উত্তর দিতে পারে। উত্তর গ্রহণের ক্ষেত্রে অবশ্যই একাধিক সোর্স যাচাই করে নিবেন। অনেকগুলো, প্রায় ২০০+ এর উপর অনুত্তরিত প্রশ্ন থাকায় নতুন প্রশ্ন না করার এবং অনুত্তরিত প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রতিটি উত্তরের জন্য ৪০ পয়েন্ট, যে সবচেয়ে বেশি উত্তর দিবে সে ২০০ পয়েন্ট বোনাস পাবে।


Science-bee-qna

সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় ট্যাগসমূহ

মানুষ পানি ঘুম এইচএসসি-উদ্ভিদবিজ্ঞান এইচএসসি-প্রাণীবিজ্ঞান রোগ জীববিজ্ঞান পৃথিবী চোখ - শরীর পদার্থ রক্ত কী মোবাইল ক্ষতি আলো এইচএসসি-আইসিটি চিকিৎসা চুল মাথা মহাকাশ পদার্থবিজ্ঞান সূর্য বৈজ্ঞানিক প্রাণী স্বাস্থ্য প্রযুক্তি পার্থক্য কেন গরম কারণ ডিম রং #জানতে শীতকাল গণিত উপকারিতা খাওয়া কাজ #biology বৃষ্টি আগুন রাসায়নিক চাঁদ বিদ্যুৎ বিজ্ঞান রাত সাপ লাল সাদা উপায় খাবার দুধ ভয় আবিষ্কার শক্তি #ask গাছ ব্যাথা মশা ঠাণ্ডা হাত কি মনোবিজ্ঞান মাছ শব্দ গ্রহ কালো বৈশিষ্ট্য উদ্ভিদ সমস্যা পা রসায়ন মস্তিষ্ক ভাইরাস মেয়ে হলুদ স্বপ্ন মন আম পাখি বাতাস পাতা ব্যথা কান্না বিস্তারিত দাঁত গ্যাস বিড়াল রঙ নাক চার্জ হরমোন আকাশ তাপমাত্রা #science ঔষধ মৃত্যু চা
...