0 votes
7 views

1 Answer

0 votes
by (890 points)
selected by
 
Best answer
বহির্প্রভাবক কর্তৃক চামড়ার বাইরের স্তর এপিডার্মিস আক্রান্ত হলে অর্থাৎ শরীরের কোথাও কোনো কারণে প্রদাহ হলে তখন কোষ থেকে হিস্টামিন নামক রস নিঃসরিত হয় যার কারণে মস্তিষ্কে ইচিং এর জন্য সংকেত প্রেরিত হয়। আগে ধারণা করা হতো হিস্টামিনের ক্রিয়ায় ব্যথা ও চুলকানির জন্য বিশেষায়িত এক ধরনের স্নায়ুতন্তু 'সি-ফাইবার' কর্তৃক অনুভূতি সংকেতটি সুষুম্নাকাণ্ডে প্রেরিত হয়। ১৯৯৭ সালে আবিষ্কৃত হয় যে, ব্যথা ও চুলকানির জন্য আলাদা আলাদা রকম পরিবাহী স্নায়ুতন্তু আছে। এদের মাধ্যমে সুষুম্নাকাণ্ড হয়ে মস্তিষ্কে পৌঁছায় চুলকানির সংকেত।

মস্তিষ্কের সোম্যাটোসেন্সরি কর্টেক্স দ্বারা চুলকানির প্রাবল্য নিরূপিত হয়। অন্যদিকে প্রিফ্রন্টাল কর্টেক্স হচ্ছে মূলত 'সুখের কেন্দ্র'। যেকোনো উত্তেজনার চরমতম মুহূর্তে ডোপামিন নিঃসরণের দ্বারা যেভাবে সুখানুভূতি তৈরি হয়, চুলকানির ক্ষেত্রেও একই হরমোন একইভাবেই কাজ করে। এর ফলে চুলকালে আরাম পাওয়া যায়।

555 questions

616 answers

89 comments

20k users

11 Online
1 members and 10 guest online
Welcome to Sciencebee Q&A, where you can ask questions and receive answers from other members of the community.
...