মোবাইলের রেডিয়েশন আমাদের শরিরের কি ক্ষতি করতে পারে? - ScienceBee প্রশ্নোত্তর

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রশ্নোত্তর দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম! প্রশ্ন-উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরস্কার, বিস্তারিত এখানে দেখুন।

+2 টি ভোট
249 বার দেখা হয়েছে
"প্রযুক্তি" বিভাগে করেছেন (1,410 পয়েন্ট)

2 উত্তর

+1 টি ভোট
করেছেন (1,410 পয়েন্ট)

অনেকেই দিনের বড় একটি সময় মোবাইল ফোনে কাটান, কিন্তু খুব কম মানুই ভাবেন বা জানেন যে এগুলো তার শরীর বা স্বাস্থ্যের উপর কতটা প্রভাব ফেলছে?

মোবাইল থেকে যে তেজস্ক্রিয় পদার্থ থাকে বা তা থেকে যে বিকিরণ আসে, তা শরীরের জন্য কতটা ক্ষতিকর? ফোনের লেডের কারণে কি টিউমার হতে পারে? এসব থেকে বাঁচার কি কোন উপায় আছে?

 
গত কয়েক বছর ধরেই এসব প্রশ্নের উত্তর পেতে চেষ্টা করছেন বিজ্ঞানীরা। যদিও এখনো সব প্রশ্নের পুরোপুরি উত্তর পাওয়া যায়নি।
 
যতটুকু আমরা জানি, মোবাইল ফোন রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি ওয়েভের ভিত্তিতে কাজ করে যা স্বল্প ক্ষমতার বিকিরণ ব্যবহার করে। এক্সরে, আলট্রা ভায়োলেট বা গামা বিকিরণে যা ব্যবহৃত হয়, এটি তারচেয়ে অনেক কম ক্ষমতার। তবে এটিও মানব শরীরে কতটা প্রভাব ফেলে, তা এখনো পুরোপুরি পরিষ্কার নয়।
 
আমাদের চারপাশে এরকম অসংখ্য বিকিরণ ঘুরে বেড়াচ্ছে। যেমন এফএম বেতারের তরঙ্গ, মাইক্রোওয়েভ আর বাতির বিকিরণ।
 
তবে আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটির ওয়েবসাইটে বলা হচ্ছে, মোবাইল ফোন হয়তো ব্রেন টিউমার বা মাথা বা গলার টিউমারের ঝুঁকি অনেকটা বাড়িয়ে দিতে পারে।
 
বিশেষ করে একটি মাইক্রোওয়েভ যেভাবে কাজ করে, সেভাবে এরকম বেতার তরঙ্গ মানুষের শরীরের কোষের উষ্ণতা বাড়িয়ে দিতে পারে।
 
যদিও মোবাইল ফোনের বিকিরণের মাত্রা খুবই কম এবং এটা শরীরের কোষকে কতটা উষ্ণ করতে পারে, তা পরিষ্কার নয়, কিন্তু বিজ্ঞানীরা বলছেন, আগাম সতর্কতা হিসাবে ফোনের কাছাকাছি কম আসাই ভালো।
 
বিজ্ঞানীরা জানার চেষ্টা করেছেন, কোন ফোন থেকে কি মাত্রায় বিকিরণ ঘটছে? তারা একটি মাত্রাও নির্ধারণ করেছেন যে, একজন মানুষ তার শরীরে কতটা বিকিরণ গ্রহণ করতে পারে।
 
মোবাইল ফোনের কোম্পানি বা উৎপাদক ভেদে একেকটি ফোনের বিকিরণের মাত্রা কম বেশি হয়। ফোনের বক্সের কাগজপত্রে বা অনলাইনে এসব তথ্য থাকলেও, খুব কম গ্রাহকই সেগুলো পড়ে দেখেন।
 
নতুন আর পুরনো ফোন মিলিয়ে বিকিরণ ছড়ানোর মাত্রার একটি তালিকা করেছে জার্মানির ফেডারেল অফিস অপর রেডিয়েশন প্রোটেকশন।
 
এই তালিকা অনুযায়ী, সবচেয়ে বেশি বিকিরণ ছড়ানো ফোনের তালিকায় রয়েছে ওয়ান প্লাস আর হুয়াওয়ে। এরপরেই রয়েছে নকিয়ার ৬৩০ ফোন।
 
আইফোন ৭ রয়েছে তালিকার ১০ নম্বরে, আইফোন ৮ রয়েছে তালিকার ১২ নম্বরে আর আইফোন ৭ প্লাস রয়েছে ১৫ নম্বরে। সনি এক্সপেরিয়া জেডএক্সওয়ান কমপ্যাক্ট রয়েছে তালিকার ১১ নম্বরে, জেডটিই অ্যাক্সন ৭ মিনি রয়েছে ১৩ নম্বরে আর ব্লাকবেরি ডিটিইকে৬০ রয়েছে ১৪ নম্বরে।
 
যদিও বৈশ্বিক ভাবে ফোনের বিকিরণের নির্দিষ্ট কোন মানদণ্ড নেই, তবে জার্মানিতে এজন্য মানদণ্ড হচ্ছে প্রতি কেজিতে ০.৬০ ওয়াট। তালিকায় থাকা সব ফোনেই বিকিরণের মাত্রা এর দ্বিগুণ। ওয়ান প্লাস ৫টিতে এই মাত্রা ১.৬৮ ওয়াট।
 
সবচেয়ে কম বিকিরণ ছড়ায় সনি এক্স পেরিয়া এম৫। এরপরেই রয়েছে স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট৮, এস৬ এজ, গুগল পিক্সেল এক্সএল, স্যামসাং এস৮ আর এস৭এজ।
 
আপনার মোবাইল ফোনের বিকিরণ মাত্রা জানার জন্য সঙ্গের ম্যানুয়াল পড়তে পারেন, কোম্পানির ওয়েবসাইটে যেতে পারেন বা যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল কমিউনিকেশন কমিশনের ওয়েবসাইটে ঢু মারতে পারেন।
 
ফোনের বিকিরণ থেকে বাঁচতে মাথা থেকে যতটা সম্ভব দূরে রাখার পরামর্শ দিচ্ছেন বিজ্ঞানীরা
 
ফোনে অ্যান্টেনার কাছে সবচেয়ে বেশি বিকিরণ ছড়ায়। আধুনিক ফোনগুলোয় ফোনের ভেতরে পেছনে এই অ্যান্টেনা বসানো থাকে।
 
বেশিরভাগ মানুষ ফোন ব্যবহার করার সময় অ্যান্টেনা মাথার উল্টো দিকে থাকে। কিন্তু মাথার যতো কাছে এরই অ্যান্টেনা থাকে, ততই ঝুঁকিও বাড়তে থাকে।
 
ধারণা করা হয়, মোবাইল ফোনের কাছাকাছি শরীরের যেসব কোষ থাকে, সেগুলো বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়, আর দূরের কোষ কম ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
 
সোর্সঃ বিবিসি
0 টি ভোট
করেছেন (4,260 পয়েন্ট)

টেকনিক্যাল ব্যাখ্যাঃ মোবাইলের রেডিয়েশন হল একটি ধরনের ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক রেডিয়েশন যা ফ্রিকোয়েন্সি পরিসীমা 900 মেগাহার্টজ থেকে 2.4 গিগাহার্টজের মধ্যে থাকে। এই রেডিয়েশনগুলি ইলেকট্রোম্যাগনেটিক তরঙ্গ হিসাবেও পরিচিত। ইলেকট্রোম্যাগনেটিক তরঙ্গগুলি শক্তির তরঙ্গ যা বৈদ্যুতিক এবং চৌম্বকীয় ক্ষেত্রের পরিবর্তনের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

মোবাইলের রেডিয়েশন আমাদের শরীরের মধ্য দিয়ে যাওয়ার সময়, এটি আমাদের কোষগুলির ইলেকট্রনগুলিকে উত্তেজিত করে। উত্তেজিত ইলেকট্রনগুলি তাদের সাধারণ অবস্থায় ফিরে আসার জন্য শক্তি নির্গত করে। এই শক্তিটি আমাদের কোষগুলিকে ক্ষতি করতে পারে।

টেকনোলজিক্যাল ব্যাখ্যাঃ মোবাইলের রেডিয়েশন আমাদের শরীরের ক্ষতি করতে পারে এমন কয়েকটি উপায় রয়েছে। একটি উপায় হল এটি আমাদের কোষের DNA-এর ক্ষতি করতে পারে। DNA হল আমাদের কোষের জেনেটিক উপাদান যা আমাদের শরীরকে কীভাবে কাজ করে তা নির্ধারণ করে। DNA-এর ক্ষতি ক্যান্সার এবং অন্যান্য স্বাস্থ্য সমস্যার কারণ হতে পারে।

আরেকটি উপায় হল মোবাইলের রেডিয়েশন আমাদের কোষের ঝিল্লিকে ক্ষতি করতে পারে। কোষের ঝিল্লি কোষগুলিকে তাদের চারপাশের পরিবেশ থেকে পৃথক করে। ঝিল্লি ক্ষতিগ্রস্ত হলে, কোষগুলি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে বা মারা যেতে পারে।

মোবাইলের রেডিয়েশন আমাদের শরীরের স্নায়ুতন্ত্রকেও ক্ষতি করতে পারে। স্নায়ুতন্ত্র আমাদের শরীরের বিভিন্ন অংশের মধ্যে যোগাযোগের জন্য দায়ী। স্নায়ুতন্ত্র ক্ষতিগ্রস্ত হলে, এটি হৃদরোগ, স্ট্রোক এবং অন্যান্য স্বাস্থ্য সমস্যার কারণ হতে পারে।

সায়েন্টিফিক ব্যাখ্যাঃ মোবাইলের রেডিয়েশন আমাদের শরীরের ক্ষতি করতে পারে এমন কয়েকটি সায়েন্টিফিক তত্ত্ব রয়েছে। একটি তত্ত্ব হল যে মোবাইলের রেডিয়েশন আমাদের কোষের DNA-এর ক্ষতি করতে পারে। DNA হল আমাদের কোষের জেনেটিক উপাদান যা আমাদের শরীরকে কীভাবে কাজ করে তা নির্ধারণ করে। DNA-এর ক্ষতি ক্যান্সার এবং অন্যান্য স্বাস্থ্য সমস্যার কারণ হতে পারে।

আরেকটি তত্ত্ব হল যে মোবাইলের রেডিয়েশন আমাদের কোষের ঝিল্লিকে ক্ষতি করতে পারে। কোষের ঝিল্লি কোষগুলিকে তাদের চারপাশের পরিবেশ থেকে পৃথক করে। ঝিল্লি ক্ষতিগ্রস্ত হলে, কোষগুলি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে বা মারা যেতে পারে।

মোবাইলের রেডিয়েশন আমাদের শরীরের স্নায়ুতন্ত্রকেও ক্ষতি করতে পারে। স্নায়ুতন্ত্র আমাদের শরীরের বিভিন্ন অংশের মধ্যে যোগাযোগের জন্য দায়ী। স্নায়ুতন্ত্র ক্ষতিগ্রস্ত হলে, এটি হৃদরোগ, স্ট্রোক এবং অন্যান্য স্বাস্থ্য সমস্যার কারণ হতে পারে।

সহজ ব্যাখ্যাঃ মোবাইলের রেডিয়েশন হল একটি ধরনের শক্তি যা আমাদের শরীরের মধ্য দিয়ে যাওয়ার সময় আমাদের কোষগুলিকে ক্ষতি করতে পারে। এই ক্ষতি ক্যান্সার, হৃদরোগ এবং অন্যান্য স্বাস্থ্য সমস্যার কারণ হতে পারে।

মোবাইলের রেডিয়েশন থেকে নিজেকে রক্ষা করার জন্য, আপনি নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি নিতে পারেন:

  • মোবাইল ফোন ব্যবহার করার সময় আপনার মাথা থেকে দূরে রাখুন।
  • মোবাইল ফোন ব্যবহার করার সময় হেডফোন বা স্পিকার ব্যবহার করুন।
  • মোবাইল ফোন ব্যবহার করার সময় টেক্সট মেসেজিং বা ইন্টারনেট ব্রাউজিংয়ের মতো কম রেডিয়েশন নির্গতকারী অ্যাপগুলি ব্যবহার করুন।
  • মোবাইল ফোন ব্যবহার করার সময় আপনার ফোনটিকে আপনার শরীরের কাছাকাছি রাখবেন না।

এগুলি শুধুমাত্র সাধারণ নির্দেশিকা। আপনার যদি মোবাইলের রেডিয়েশন সম্পর্কে উদ্বেগ থাকে তবে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সাথে কথা বলুন।

আশা করি উত্তরটি পেয়েছেন। ধন্যবাদ!

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
1 উত্তর 1,021 বার দেখা হয়েছে
0 টি ভোট
1 উত্তর 1,181 বার দেখা হয়েছে
+1 টি ভোট
1 উত্তর 266 বার দেখা হয়েছে
10 জুলাই 2022 "স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Petter Parker (170 পয়েন্ট)

10,719 টি প্রশ্ন

18,361 টি উত্তর

4,729 টি মন্তব্য

239,764 জন সদস্য

52 জন অনলাইনে রয়েছে
1 জন সদস্য এবং 51 জন গেস্ট অনলাইনে
  1. Ayon Ratan Agni

    390 পয়েন্ট

  2. Vuter Baccha

    150 পয়েন্ট

  3. almoyaj_k

    130 পয়েন্ট

  4. Mehedi_Bknowledge

    110 পয়েন্ট

  5. Monojit Das

    110 পয়েন্ট

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত বিজ্ঞান প্রশ্নোত্তর সাইট সায়েন্স বী QnA তে আপনাকে স্বাগতম। এখানে যে কেউ প্রশ্ন, উত্তর দিতে পারে। উত্তর গ্রহণের ক্ষেত্রে অবশ্যই একাধিক সোর্স যাচাই করে নিবেন। অনেকগুলো, প্রায় ২০০+ এর উপর অনুত্তরিত প্রশ্ন থাকায় নতুন প্রশ্ন না করার এবং অনুত্তরিত প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রতিটি উত্তরের জন্য ৪০ পয়েন্ট, যে সবচেয়ে বেশি উত্তর দিবে সে ২০০ পয়েন্ট বোনাস পাবে।


Science-bee-qna

সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় ট্যাগসমূহ

মানুষ পানি ঘুম পদার্থ - জীববিজ্ঞান এইচএসসি-উদ্ভিদবিজ্ঞান এইচএসসি-প্রাণীবিজ্ঞান পৃথিবী চোখ রোগ রাসায়নিক শরীর রক্ত আলো মোবাইল ক্ষতি চুল কী #ask চিকিৎসা পদার্থবিজ্ঞান সূর্য প্রযুক্তি প্রাণী স্বাস্থ্য বৈজ্ঞানিক মাথা গণিত মহাকাশ পার্থক্য এইচএসসি-আইসিটি #science বিজ্ঞান #biology খাওয়া শীতকাল গরম কেন #জানতে ডিম চাঁদ বৃষ্টি কারণ কাজ বিদ্যুৎ রাত রং উপকারিতা শক্তি লাল আগুন সাপ মনোবিজ্ঞান গাছ খাবার সাদা আবিষ্কার দুধ উপায় হাত মশা মাছ মস্তিষ্ক শব্দ ঠাণ্ডা ব্যাথা ভয় বাতাস গ্রহ স্বপ্ন রসায়ন তাপমাত্রা উদ্ভিদ কালো কি বিস্তারিত রঙ পা পাখি গ্যাস মন সমস্যা মেয়ে বৈশিষ্ট্য হলুদ বাচ্চা সময় ব্যথা মৃত্যু চার্জ অক্সিজেন ভাইরাস আকাশ গতি দাঁত আম বিড়াল কান্না নাক
...