0 votes
12 views
in মনোবিজ্ঞান by (6.6k points)

1 Answer

0 votes
by (6.6k points)

আধুনিক বিজ্ঞানের মতে শিশুর ঘুমের মধ্যে হাসি খুব সহজ একটি বিষয়। শিশুরা মাঝে মধ্যে এমন করলে ভয়ের কিছু নেই। শিশুরা ঘুমের মধ্যে হাসে, কাঁদে বা মুখ নাড়ে যা খুব স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। চলুন জেনে নেই বাচ্চাদের ঘুমের মধ্যে হাসার কমন কারণগুলো কী কী।



ঘুমের মধ্যে স্বপ্ন দেখা

শিশুদের ঘুমের মধ্যে হাসির প্রথম ও প্রধান কারন হলো ঘুমে স্বপ্ন দেখা। বড়দের মত শিশুরাও ঘুমের মধ্যে স্বপ্ন দেখে থাকে। এটি খুব আশ্চর্যের কোন বিষয় নয়। যে কোন বয়সের মানুষই স্বপ্ন দেখতে পারে। শিশুরা যখন স্বপ্নে ভাল বা মজার কিছু দেখে তখন হাসে আবার খারাপ কিছু বা ভয়ের কিছু দেখলে কাঁদে। শিশুর বিচিত্র স্বপ্নের মধ্যে নিকটবর্তী লোক যেমন মা বাবা এদের নিয়ে বেশি স্বপ্ন দেখে। চেনা মুখগুলো যখন স্বপ্নে ভেসে ওঠে তখন শিশুরা একটি পরিচিত জায়গার খোঁজ পায়। আর তাকে কেন্দ্র করেই স্বপ্নে বিভিন্ন কিছু ভেসে ওঠে। স্বপ্নের কিছু কিছু ঘটনা শিশুর মনকে খুব আন্দোলিত করে। যার কারণে শিশুর মুখে এক ধরনের হাসি ফুটে উঠে। এটি খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার।


বিছানায় আরাম পেলে

স্বপ্ন দেখার পাশাপাশি কিছু বাহ্যিক কারণ শিশুর ঘুমের মধ্যে হাসির কারণ হতে পারে। শিশু যখন খুব নরম বিছানায় খুব আরাম করে ঘুমায় তখন শিশুর মনে এক ধরনের প্রশান্তি কাজ করে। সেই প্রশান্তির ফলে বাচ্চারা ঘুমের মধ্যে এক ধরনের হাসি মুখ করে থাকে। এই হাসিতে শিশু কোন আওয়াজ করে না। এটিকে শিশুর প্রশান্তি মুখের অবয়ব ও বলা যায়।



মায়ের কোলে থাকলে

মায়ের কোল শিশুদের জন্য সবচেয়ে সুখকর স্থান। শিশুরা মায়ের কোলে চরম প্রশান্তি উপভোগ করে থাকে।



মায়ের কোলে শিশুরা পরম তৃপ্তিতে ঘুমিয়ে পড়ে। মায়ের আদর এবং ভালবাসায় জড়ানো ছোঁয়ায় শিশুর চোখে মুখে পরম প্রশান্তি নেমে আসে। এতে শিশু প্রকৃতিগতভাবেই নিরাপদ বোধ করে।



কারও হাতের স্পর্শ পেলে

ঘুমের মধ্যে শরীরে হাতের স্পর্শে শরীরে সুড়সুড়ি মত হলে শিশুরা অনেক সময় হাসতে শুরু করে। অনেক সময় ছোট বাচ্চাদের দেখা যায় শিশুদের ঘুমের মধ্যে সুড়সুড়ি দিয়ে হাসাতে। শিশুদের নরম শরীরে হালকা কিছুর স্পর্শ লাগলেই শিশুরা এক ধরণের সুড়সুড়ির অনুভব করে থাকে। ফলে শিশুদের মুখ হাসি হাসি হয়ে উঠে। বাচ্চাকে ঘুমের মধ্যে হাসানো অনেক সময় অন্য বাচ্চাদের কাছে খেলা হয়ে ওঠে। তবে খেয়াল রাখতে হবে এই ধরণের আচরণ বাচ্চার ঘুমের জন্য অসম্ভব ক্ষতিকারক। অন্য বাচ্চাদের দুষ্টুমি শিশুর পর্যাপ্ত ঘুমে বাধা সৃষ্টি করতে পারে।



পরিশিষ্ট



বাবা মা ছোটবেলা থেকেই শিশুকে চোখে চোখ রেখে বড় করতে চায়। ফলে শিশুদের অনেক ছোট খাট বিষয় ও তাদের কাছে অনেক বড় করে ধরা দিয়ে থাকে। শিশুদের ছোটবেলায় অনেক সাধারন কার্যকলাপের মধ্যে ঘুমের মধ্যে হাসি এক ধরনের সহজ প্রক্রিয়া। তাই অভিভাবকদের এসব নিয়ে মাথা না ঘামিয়ে শিশুদের পর্যাপ্ত সেবা নিশ্চিত করা উচিত।

555 questions

616 answers

90 comments

20.2k users

14 Online
0 members and 14 guest online
Welcome to Sciencebee Q&A, where you can ask questions and receive answers from other members of the community.
...