দুধ খেয়ে আনারস খেলে কি মানুষ মারা যায়? - ScienceBee Q&A

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রশ্নোত্তর দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম! প্রশ্ন অথবা উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরস্কার, বিস্তারিত এখানে দেখুন।

+15 টি ভোট
2.0k বার দেখা হয়েছে
"স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে করেছেন (59.0k পয়েন্ট)
পূনঃরায় খোলা করেছেন
Science News

5 উত্তর

+4 টি ভোট
করেছেন (120k পয়েন্ট)
 
সর্বোত্তম উত্তর
Shafiqul Islam EK-

আনারস ও দুধ নিয়মমাফিক ও সঠিক খাদ্যের সমন্বয়ে খান।

আনারস খুব উপাদেয় ফল। এর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন এ এবং সি। রয়েছে ক্যালসিয়াম,পটাশিয়াম ও ফসফরাস। আর দুধকে আমরা সুষম খাদ্য হিসেবে বিবেচনা করি। তবে আনারস আর দুধ একসঙ্গে খেলে মানুষ বিষক্রিয়া হয়ে মারা যায়-এ রকম একটি ধারণা প্রচলিত আছে। বাড়ির বয়োজ্যেষ্ঠরা অনেক সময় ছোটদের এ খাবার একসঙ্গে খেতে নিষেধ করেন। তবে আসলেই কি এ রকম হয়? আসুন জেনে নিই আসলে কী হয় আনারস আর দুধ একসঙ্গে খেলে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের ডিন অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ বলেন, ‘আনারস ও দুধ একসঙ্গে খেলে বিষক্রিয়া হয়ে কেউ মারা যায় এই ধারণা ভুল। এগুলো এক ধরনের ফুড ট্যাবু বা খাদ্য কুসংস্কার।’

অধ্যাপক আবদুল্লাহ বিষয়টি ব্যাখ্যা করে বলেন, ‘আনারস একটি এসিডিক এবং টকজাতীয় ফল। দুধের মধ্যে যেকোনো টকজাতীয় জিনিস দিলে দুধ ছানা হয়ে যেতে পারে বা ফেটে যেতে পারে। এটা কমলা ও দুধের বেলায় বা লেবু ও দুধের বেলাতেও ঘটে। ফেটে যাওয়া দুধ খেলে খুব বেশি হলে বদ হজম, পেট ফাঁপা, পেট খারাপ– এ ধরনের সমস্যা হতে পারে, তবে বিষক্রিয়ার কোনো আশঙ্কা নেই। যাদের গ্যাসট্রিকের সমস্যা রয়েছে, খালি পেটে আনারস খেলে তাদের এই সমস্যা বেড়ে যেতে পারে।’

একই বিষয়ে কথা হয় হলি ফ্যামিলি মেডিকেল কলেজের রেজিস্ট্রার ও মেডিসিন বিভাগ ডা. শ আ মোনেমের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘এমন কখনো দেখিনি যে দুধ-আনারস একসঙ্গে খেয়ে মানুষ মারা গেছে। এটা একটা কুসংস্কার। আমরা তো অনেক সময় ডেজার্ট, কাস্টার্ড বা স্মুদিতে আনারস-দুধ একত্রে মিশিয়ে খাই। এগুলো খেলে তো কোনো সমস্যা হয় না।’

অ্যাপোলো হাসপাতালের প্রধান পুষ্টিবিদ তামান্না চৌধুরী বলেন, ‘আনারস একটি এসিডিক খাবার। আর দুধ হলো অ্যালকালাইন বা ক্ষার। দুধ যদি পাস্তুরিত না হয়, তবে কাঁচা দুধ ও আনারসের সমন্বয়ে শরীরে বিক্রিয়া হতে পারে। দুধের সঙ্গে আনারসের সঠিক সমন্বয় না হলে শারীরিক সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা আছে। এ ক্ষেত্রে অন্যান্য খাবারের বেলাতেও একই বিষয় হতে পারে।’

তামান্ন চৌধুরী আরো যোগ করেন, ‘আমরা বিভিন্ন সময়ই পাইনা অ্যাপেল কাস্টার্ড, ডেজার্ট, পাইন অ্যাপেল স্মুদি, পাইন অ্যাপেল মিল্ক সেক, পাইন অ্যাপেল সালাদ, পাইন অ্যাপেল ইয়োগার্ট ইত্যাদি খাই। এতে সমস্যা হয় না। কারণ এগুলোর মধ্যে খাদ্যের সঠিক সমন্বয় থাকে এবং নিয়মমাফিক বা সঠিক নিয়মে বানানো হয়। আর হয়তো এক গ্লাস দুধ খেলেন, পাশাপাশি আনারস খেয়ে নিলেন তাহলে সঠিক খাদ্যের সমন্বয় হয় না। এ ক্ষেত্রে সঠিক সমন্বয় না হওয়ার ফলে পাতলা পায়খানা, বদ হজম, এসিডিটি ইত্যাদি সমস্যা হতে পারে। তবে বিষক্রিয়া হয়ে মৃত্যু হওয়ার আশঙ্কা নেই।’

তবে ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ সতর্ক করে দিয়ে বলেন, ‘আনারস আর দুধ বিরতি দিয়ে খাওয়াই ভালো। দুই থেকে তিন ঘণ্টা বিরতি দিয়ে খাওয়া যেতে পারে। নয়তো অনেক সময় পেটে গিয়ে হজমের সমস্যা হতে পারে। তবে যদি সঠিক নিয়মে খাবার বানানো হয় এবং সঠিক খাদ্যের সমন্বয় থাকে তাহলে কোনো সমস্যা হবে না। দুধ ফুটিয়ে নিলে বা প্রসেস করে নিলে টক্সিটিক বিষয়টি আর থাকে না, তখন খাওয়া যেতে পারে। তাই আনারস-দুধ সঠিক নিয়মে এবং সঠিক খাদ্যের সমন্বয়ে খাওয়া যেতে পারে।’
+5 টি ভোট
করেছেন (59.0k পয়েন্ট)

দুধ খাওয়ার পর আনারস অথবা অানারস খাওয়ার পর দুধ খেলে মরে যাবো - আমাদের দেশে প্রচলিত ভুল ধারণাগুলোর মধ্যে এটি অন্যতম। অনেকে তো আনারস খাওয়ার পর Milk Chocolate খেতেও রীতিমতো ভয় পেয়ে যায় 
সাধারণত বলা হয়ে থাকে আনারস ও দুধ একসাথে বিষক্রিয়া করে এবং মানুষ মারাও যেতে পারে। কিন্তু পরীক্ষার মাধ্যমে এটি ভুল প্রমাণিত হয়েছে। মূলত আনারস অম্লীয় ফল, যা দুধের সাথে মেশালে দুধের কোয়াগুলেশন নষ্ট হয়ে দুধ ফেটে যায়। এ ঘটনা যদি পেটের মধ্যে ঘটে বড়জোর পেট ব্যাথা হতে পারে।

কিছু কিছু জায়গায় "পাইন্যাপেল মিল্কশেক" পাওয়া যায়। টেস্ট করে দেখতে পারে!

+6 টি ভোট
করেছেন (59.0k পয়েন্ট)

Muhammad Tanvir দুধ খেয়ে আনারস খেলে অথবা আনারস খেয়ে দুধ খেলে যেভাবেই বলি না কেন মূলত এটাকে বলা হয় ফুড ট্যাবু বা খাদ্য কুসংস্কার..যা আমাদের দেশের মানুষের মাঝে খুব ভালো ভাবেই চেপে বসে আছে(আমি ও ব্যতিক্রম নই,আমার ও আগে এরকম ধারণা ছিলো)..মূলত পেটের ভিতরে বিষক্রিয়া সৃষ্টি হয় নাহ কিন্তুু কিছু পাকস্থলীয় সমস্যা দেখা দেয় বদহজম,পেটফাঁপা,পেটখারাপ..যাদের গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যা তাদের ক্ষেত্র ব্যাপারগুলো আরেকটু তীব্র.আর যাদের গ্যাস্ট্রিক এর প্রবলেম তাদের খালি আনারস না টক জাতীয় কিছু খেলেই সমস্যা হয়...আর খাদ্যের সমন্বয় বলে একটা ব্যাপার আছে আসলে আমরা অনেকেই দুধ-আনারস মিক্সড অনেক কিছুই খেয়েছি যেমন-পাইনঅ্যাপল মিল্কস্যাক,পাইনঅ্যাপল কাস্টার্ড আরও বিভিন্ন ডেজার্ট..বাট এতে সমস্যা না হওয়ার প্রধাণ কারণ হচ্ছে এতে পাইনঅ্যাপল আর দুধের সমন্বয়টা বেশ ভালো হয়েছে..আনারস একটু অ্যাসিডিক আর টক জাতীয় ফল বিধায় পেটের কিছু সমস্যা আর এমনিতে ও দুধের মধ্যে টক দিলে তা ছানা হয়ে যায় বা ফেটে যায় আর থেকেই মূলত পাকস্থলীয় পীড়া..তাই দুধ ও আনারস একসঙ্গে না খেয়ে দুই-তিন ঘন্টা বিরতি দিয়ে খান যাতে স্বাস্থ্য ঠিক থাকে...আর এসব কুসংস্কার আমরা বর্জন করে বিজ্ঞানের কষ্টিপাথর দিয়ে ব্যাপারগুলা যাচাই করি..তাহলেই ইন শা আল্লাহ জানতে পারবো ।

করেছেন
জাযাকাল্লাহ
+5 টি ভোট
করেছেন (13.6k পয়েন্ট)

Afsana Afrin-

আনারস ও দুধ একসঙ্গে খেলে বিষক্রিয়া হয়ে কেউ মারা যায় এই ধারণা ভুল। এগুলো এক ধরনের ফুড ট্যাবু বা খাদ্য কুসংস্কার।

আনারস একটি এসিডিক এবং টকজাতীয় ফল। দুধের মধ্যে যেকোনো টকজাতীয় জিনিস দিলে দুধ ছানা হয়ে যেতে পারে বা ফেটে যেতে পারে। এটা কমলা ও দুধের বেলায় বা লেবু ও দুধের বেলাতেও ঘটে। ফেটে যাওয়া দুধ খেলে খুব বেশি হলে বদ হজম, পেট ফাঁপা, পেট খারাপ– এ ধরনের সমস্যা হতে পারে, তবে বিষক্রিয়ার কোনো আশঙ্কা নেই। যাদের গ্যাসট্রিকের সমস্যা রয়েছে, খালি পেটে আনারস খেলে তাদের এই সমস্যা বেড়ে যেতে পারে।

আমরা তো অনেক সময় ডেজার্ট, কাস্টার্ড বা স্মুদিতে আনারস-দুধ একত্রে মিশিয়ে খাই। এগুলো খেলে তো কোনো সমস্যা হয় না।

আনারস একটি এসিডিক খাবার। আর দুধ হলো অ্যালকালাইন বা ক্ষার। দুধ যদি পাস্তুরিত না হয়, তবে কাঁচা দুধ ও আনারসের সমন্বয়ে শরীরে বিক্রিয়া হতে পারে। দুধের সঙ্গে আনারসের সঠিক সমন্বয় না হলে শারীরিক সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা আছে। এ ক্ষেত্রে অন্যান্য খাবারের বেলাতেও একই বিষয় হতে পারে।’

এ ক্ষেত্রে সঠিক সমন্বয় না হওয়ার ফলে পাতলা পায়খানা, বদ হজম, এসিডিটি ইত্যাদি সমস্যা হতে পারে। তবে বিষক্রিয়া হয়ে মৃত্যু হওয়ার আশঙ্কা নেই।

+3 টি ভোট
পূর্বে করেছেন (1.1k পয়েন্ট)

আনারস খাওয়ার পর দুধ পান কিংবা দুধ পানের পর আনারস খাওয়ার প্রস্তাব দিলে কী করবেন? কেউ কেউ সাহস করে কাজটা করে ফেলেন। তবে বেশির ভাগই হয়তো পিঠটান দেন। কারণ, ছেলেবেলা থেকেই তো শুনে আসছি আমরা—আনারসের পর দুধ পানে সাক্ষাৎ মৃত্যু! আনারস আর দুধ একসঙ্গে কিংবা পরপর খেলে সত্যিই কি মানুষ মারা যায়?

দুধকে বলা হয় আদর্শ খাবার। বিশেষজ্ঞদের মতে, দুধই একমাত্র তরলজাতীয় খাবার, যেখানে প্রায় সব ধরনের পুষ্টি উপাদান বিদ্যমান। প্রোটিন, ফ্যাট আর কার্বোহাইড্রেটের দারুণ এক ‘মিক্সচার’ হলো দুধ। তাই যেকোনো বয়সের মানুষের জন্য দুধ উপকারী।

অন্যদিকে আনারসে ভরপুর ভিটামিন সি। এ ছাড়া ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম ও ফসফরাসের দারুণ এক উৎস। দেশেই প্রচুর চাষ হয় বলে গ্রাম থেকে শহর—সব জায়গায়ই আনারস সহজলভ্য।

তবে এই দুই খাবার একসঙ্গে পাকস্থলিতে গেলে কি রেসলিংয়ের ট্যাগ টিমের মতো যৌথ প্রয়াসে আমাদের নাকাল করতে উদ্যোগী হয়? বিজ্ঞান এ বিষয়ে কী বলে? বারডেমের সাবেক প্রধান পুষ্টিবিদ আখতারুন নাহার আলো বলেন, ‘দুধ আর আনারস একসঙ্গে খেলে মানুষের মৃত্যু হয়—কথাটির বৈজ্ঞানিক কোনো ভিত্তি নেই। এটি নিতান্তই প্রচলিত কুসংস্কার।’

যুক্তি হিসেবে তিনি কাস্টার্ডের কথা বললেন। এতে অন্যান্য ফলের সঙ্গে আনারস তো থাকেই, সঙ্গে থাকে দুধ। আবার আইসক্রিম কিংবা মিল্কশেকেও আনারসের সঙ্গে দুধ ব্যবহার করা হয় অহরহ। এসব খাবার খেলে মৃত্যু তো দূরে থাক, ছোটখাটো সমস্যার অভিযোগও কেউ করেছেন বলে শোনা যায় না।

আনারসে প্রচুর ফাইবার বা আঁশ থাকে। এ কারণে আনারস খেলে অনেকের অ্যাসিডিটির সমস্যা দেখা দেয়। অন্যদিকে অনেকেই দুধ হজম করতে পারেন না। ফলে বদহজম বা পেট খারাপ হয়। দুধে ল্যাকটোজেন নামের একটি উপাদান থাকে। অনেকের পেটে এই ল্যাকটোজেন সহ্য হয় না। চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় একে ল্যাকটোজেন অসহনশীলতা বলা হয়।

অর্থাৎ বোঝা যাচ্ছে, এই সমস্যাগুলোও দুধ আর আনারস একসঙ্গে খাওয়ার জন্য তৈরি হয় না। সমস্যাগুলো দেখা দেয় আমাদের শারীরিক কিছু সমস্যা বা সীমাবদ্ধতার কারণে।

তাহলে মৃত্যুর ভুল ধারণাটি কীভাবে এল? প্রশ্নটির উত্তরে পুষ্টিবিদ আখতারুন নাহার আলো শোনালেন এক লোককাহিনি। আনারস সাধারণত ঝোপঝাড়ের মধ্যেই হয়। আর ঝোপ মানেই সাপের আনাগোনা। প্রচলিত আছে, একবার এক বিষধর সাপ আনারসের ঝোপে ঘাপটি মেরে ছিল। কোনোভাবে সেই সাপ আনারসের গায়ে বিষ ঢেলে দিয়েছিল। এরপর সেই বিষাক্ত আনারস খেয়ে ফেলেন এক ব্যক্তি। এর পরপরই চুমুক দেন দুধের গ্লাসে। ব্যস, খানিক পরেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি। ফলে লোকজন ধরে নেয়, আনারসের পর দুধ পান করায় তিনি প্রাণ খুইয়েছেন এবং তারপর থেকেই ছড়িয়ে পড়ে সেই কুসংস্কার—আনারস আর দুধ একসঙ্গে খেয়েছেন তো মরেছেন!

4.7k টি প্রশ্ন

4.8k টি উত্তর

4.2k টি মন্তব্য

42.3k জন সদস্য

42 জন অনলাইনে রয়েছে
2 জন সদস্য এবং 40 জন গেস্ট অনলাইনে
  1. Hasan Rizvy Pranto

    5210 পয়েন্ট

  2. মেহেদী হাসান

    1590 পয়েন্ট

  3. Martian

    1260 পয়েন্ট

  4. Life Solution

    930 পয়েন্ট

  5. Hojayfa Ahmed

    670 পয়েন্ট

মাসিক গিফট
১ম স্থান: ১০০ টাকা
২য় স্থান : ৭০ টাকা
৩য় স্থান: ৫০ টাকা

সাইন্স বী QnA তে আপনাকে স্বাগতম। অনেকগুলো, প্রায় ২০০+ এর উপর অনুত্তরিত প্রশ্ন থাকায় নতুন প্রশ্ন না করার এবং অনুত্তরিত প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রতিটি উত্তরের জন্য ৪০ পয়েন্ট, যে সবচেয়ে বেশি উত্তর দিবে সে ২০০ পয়েন্ট বোনাস পাবে।


Science-Bundle-min
...