গালে টোল পড়ে কেন? - ScienceBee প্রশ্নোত্তর

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রশ্নোত্তর দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম! প্রশ্ন-উত্তর দিয়ে জিতে নিন পুরস্কার, বিস্তারিত এখানে দেখুন।

+1 টি ভোট
1,154 বার দেখা হয়েছে
"জীববিজ্ঞান" বিভাগে করেছেন (141,790 পয়েন্ট)

4 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (141,790 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর

ডিম্পল বা টোলকে বেশ আগে থেকেই ধরা হয় সৌন্দর্যের প্রতীক। গাল কিংবা থুতনিতে থাকা টোল থাকে আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। কিন্তু এবার জানা যাচ্ছে বিপরীতধর্মী এক সত্য। কোনো সৌন্দর্যের প্রতীক নয়, বরং শারীরিক ত্রুটির ফল হলো টোল।

কীভাবে টোলের সৃষ্টি হয়? 

আমাদের হাসির জন্য দায়ী মাংসপেশিকে বলা হয় জাইগোম্যাটিক মেজর। এটি আমাদের মুখ তির্যকভাবে বাঁকা করে হাসতে সাহায্য করে। মানুষের গালের হাড় থেকে মুখের প্রান্ত পর্যন্ত এই মাংসপেশি বিস্তৃত। এই পেশির ত্রুটির কারণে টোলের সৃষ্টি হয়। স্বাভাবিকের চাইতে এই পেশির আকার ছোট হলে কিংবা এটি দুই ভাগে বিভাজিত হলে থুতনিতে বা গালে টোল পড়ে। গালের টোল কেবল হাসলে দেখা গেলেও থুতনির টোল সবসময়ই দেখা যায়। সাধারণত, যাদের টোল পড়ে তাদের দুই গালেই টোল পড়ে। তবে মাঝেমধ্যে কিছু কিছু মানুষের এক গালেও টোল দেখা যায়। যদিও এই সংখ্যা নগণ্য। 

কেন টোল পড়ে?

গবেষণা অনুযায়ী জেনেটিক কারণে টোল পড়ে। যদিও কেউ কেউ এর বিরোধিতাও করেন। বিভিন্ন হিসাব অনুযায়ী, মা কিংবা বাবা কারও একজনের টোল থাকলে সন্তানের টোল থাকার সম্ভাবনা ২৫ থেকে ৫৯ শতাংশ। এ ক্ষেত্রে দুজনের একজনের টোল সৃষ্টিকারী জীন সন্তানের মধ্যে থাকলেই চলবে। আর যদি মা-বাবা দুজনেরই টোল থাকে সেক্ষেত্রে সন্তানের টোল থাকার সম্ভাবনা ৫০-১০০ শতাংশ। আর যদি মা-বাবার কারোর টোল না থাকে তবে সন্তানের টোল থাকার সম্ভাবনা নেই, যদি না সে কোনো জেনেটিক মিউটেশনের শিকার হয়। অনেকসময় মুখে অতিরিক্ত চর্বি জমলেও গালে টোল পড়ে। 

যে কারণেই হোক না কেন, গালে বা থুতনিতে টোল পড়া কোনো সৌন্দর্যের প্রতীক নয়। এটি ত্রুটি।

0 টি ভোট
করেছেন (9,000 পয়েন্ট)
গালে ‘টোল’ নামক যে জিনিস আমাদের গালে দেখা যায় আর যার কারণে সৌন্দর্যেও আসে ভিন্নতা সেটি আসলে মূলত এক ধরণের জিনগত ত্রুটি। জন্মের সময় শারীরিক গঠনের একদম শুরুর দিকে সাবকিউটেনাস কানেক্টিভ টিস্যুর পরিবর্তন ঘটে। সেই অর্থে এটি রিসেসিভ জিন নয়। এই একটি ত্রুটিপূর্ণ জিনই গালে ‘টোল’-এর জন্য দায়ী।

 

বাবা মা দুজনের গালে টোল থাকলে সন্তানের গালেও টোল পড়বে এমন নয়। আবার কারও না থাকলেও সন্তানের টোল পড়তে পারে। টোল কখনো দু গালেই পড়ে। আবার কখনো এক গালেও হতে পারে।

 

কিন্তু ঘটনা যেমনই হোক না কেন ‘টোল’ কিন্তু একজন মানুষকে সত্যিই অন্যের থেকে কিছুটা আলাদা করেই দেয়! সূত্র- দৈনিক অধিকার
0 টি ভোট
করেছেন (12,550 পয়েন্ট)
মানুষের হাসির জন্য দায়ী যে মাংসপেশি, তার নাম জাইগোম্যাটিক মেজর। এটি মানুষের মুখ কোনাকুনি বা তির্যকভাবে বাঁকা করে হাসতে সাহায্য করে। মানুষের গালের হাড় থেকে মুখের প্রান্ত পর্যন্ত বিস্তৃত হয় এর জন্যই।

আর এই পেশির বিকৃতির ফলেই টোল পড়ে সাধারণত। স্বাভাবিক আকারের থেকে এই পেশির আকার ছোট কিংবা দুই ভাগে বিভাজিত হওয়ার ফলে থুতনিতে বা গালে টোল দেখা যায়। গালের টোলের জন্য হাসার প্রয়োজন পড়লেও থুতনির টোল সবসময়ই দেখা যায়।

সচরাচর টোল পড়া মানুষের দুই গালেই টোল দেখা যায়।মাঝে মাঝে এক গালেও দেখা যায়। তবে এটা একেবারেই বিরল। গবেষণায় দেখা গেছে, টোল বিষয়টা জেনেটিক কারণে হয়, তবে অনেকে এর বিরোধিতাও করেন। মা-বাবার কারও টোল থাকলে, তাদের সন্তানের টোল থাকার সম্ভাবনা প্রায় ২৫-৫০ শতাংশ।
0 টি ভোট
করেছেন (15,200 পয়েন্ট)
গালে টোল পড়ে কেন?

 

ডিম্পল বা টোলকে বেশ আগে থেকেই ধরা হয় সৌন্দর্যের প্রতীক। গাল কিংবা থুতনিতে থাকা টোল থাকে আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। কিন্তু এবার জানা যাচ্ছে বিপরীতধর্মী এক সত্য। কোনো সৌন্দর্যের প্রতীক নয়, বরং শারীরিক ত্রুটির ফল হলো টোল।

 

কীভাবে টোলের সৃষ্টি হয়?

 

আমাদের হাসির জন্য দায়ী মাংসপেশিকে বলা হয় জাইগোম্যাটিক মেজর। এটি আমাদের মুখ তির্যকভাবে বাঁকা করে হাসতে সাহায্য করে। মানুষের গালের হাড় থেকে মুখের প্রান্ত পর্যন্ত এই মাংসপেশি বিস্তৃত। এই পেশির ত্রুটির কারণে টোলের সৃষ্টি হয়। স্বাভাবিকের চাইতে এই পেশির আকার ছোট হলে কিংবা এটি দুই ভাগে বিভাজিত হলে থুতনিতে বা গালে টোল পড়ে। গালের টোল কেবল হাসলে দেখা গেলেও থুতনির টোল সবসময়ই দেখা যায়। সাধারণত, যাদের টোল পড়ে তাদের দুই গালেই টোল পড়ে। তবে মাঝেমধ্যে কিছু কিছু মানুষের এক গালেও টোল দেখা যায়। যদিও এই সংখ্যা নগণ্য।

 

কেন টোল পড়ে?

 

গবেষণা অনুযায়ী জেনেটিক কারণে টোল পড়ে। যদিও কেউ কেউ এর বিরোধিতাও করেন। বিভিন্ন হিসাব অনুযায়ী, মা কিংবা বাবা কারও একজনের টোল থাকলে সন্তানের টোল থাকার সম্ভাবনা ২৫ থেকে ৫৯ শতাংশ। এ ক্ষেত্রে দুজনের একজনের টোল সৃষ্টিকারী জীন সন্তানের মধ্যে থাকলেই চলবে। আর যদি মা-বাবা দুজনেরই টোল থাকে সেক্ষেত্রে সন্তানের টোল থাকার সম্ভাবনা ৫০-১০০ শতাংশ। আর যদি মা-বাবার কারোর টোল না থাকে তবে সন্তানের টোল থাকার সম্ভাবনা নেই, যদি না সে কোনো জেনেটিক মিউটেশনের শিকার হয়। অনেকসময় মুখে অতিরিক্ত চর্বি জমলেও গালে টোল পড়ে।

 

যে কারণেই হোক না কেন, গালে বা থুতনিতে টোল পড়া কোনো সৌন্দর্যের প্রতীক নয়। এটি ত্রুটি। আপনারও কি গালে টোল পড়ে? কমেন্ট করে জানান।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+1 টি ভোট
2 টি উত্তর 146 বার দেখা হয়েছে
26 অক্টোবর 2021 "জীববিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Anupom (15,270 পয়েন্ট)
0 টি ভোট
3 টি উত্তর 159 বার দেখা হয়েছে
14 ফেব্রুয়ারি 2022 "স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Subrata Saha (15,200 পয়েন্ট)
+4 টি ভোট
3 টি উত্তর 1,809 বার দেখা হয়েছে
01 ফেব্রুয়ারি 2021 "বিবিধ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Hojayfa Ahmed (135,480 পয়েন্ট)
+14 টি ভোট
2 টি উত্তর 1,794 বার দেখা হয়েছে
02 জুন 2020 "স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Admin (70,980 পয়েন্ট)
+9 টি ভোট
3 টি উত্তর 1,538 বার দেখা হয়েছে
28 অক্টোবর 2020 "বিবিধ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন বিজ্ঞানের পোকা ৪ (15,710 পয়েন্ট)

10,709 টি প্রশ্ন

18,306 টি উত্তর

4,726 টি মন্তব্য

235,026 জন সদস্য

63 জন অনলাইনে রয়েছে
0 জন সদস্য এবং 63 জন গেস্ট অনলাইনে
  1. Jihadul Amin

    320 পয়েন্ট

  2. Md Shahadat Hossain

    220 পয়েন্ট

  3. Asniya Ayub Ava

    190 পয়েন্ট

  4. আমি কই

    180 পয়েন্ট

  5. Nahid Jahan Bhuiyan

    160 পয়েন্ট

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় উন্মুক্ত বিজ্ঞান প্রশ্নোত্তর সাইট সায়েন্স বী QnA তে আপনাকে স্বাগতম। এখানে যে কেউ প্রশ্ন, উত্তর দিতে পারে। উত্তর গ্রহণের ক্ষেত্রে অবশ্যই একাধিক সোর্স যাচাই করে নিবেন। অনেকগুলো, প্রায় ২০০+ এর উপর অনুত্তরিত প্রশ্ন থাকায় নতুন প্রশ্ন না করার এবং অনুত্তরিত প্রশ্ন গুলোর উত্তর দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। প্রতিটি উত্তরের জন্য ৪০ পয়েন্ট, যে সবচেয়ে বেশি উত্তর দিবে সে ২০০ পয়েন্ট বোনাস পাবে।


Science-bee-qna

সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় ট্যাগসমূহ

মানুষ পানি ঘুম পদার্থ - জীববিজ্ঞান এইচএসসি-উদ্ভিদবিজ্ঞান এইচএসসি-প্রাণীবিজ্ঞান পৃথিবী চোখ রোগ রাসায়নিক শরীর রক্ত আলো মোবাইল ক্ষতি চুল কী #ask চিকিৎসা পদার্থবিজ্ঞান সূর্য প্রযুক্তি প্রাণী স্বাস্থ্য বৈজ্ঞানিক মাথা গণিত মহাকাশ পার্থক্য এইচএসসি-আইসিটি বিজ্ঞান #science #biology খাওয়া শীতকাল গরম কেন #জানতে ডিম চাঁদ বৃষ্টি কারণ কাজ বিদ্যুৎ রাত রং উপকারিতা শক্তি লাল আগুন সাপ মনোবিজ্ঞান গাছ খাবার সাদা আবিষ্কার দুধ উপায় হাত মশা মাছ মস্তিষ্ক শব্দ ঠাণ্ডা ব্যাথা ভয় বাতাস গ্রহ স্বপ্ন তাপমাত্রা রসায়ন উদ্ভিদ কালো কি বিস্তারিত রঙ পা পাখি গ্যাস মন সমস্যা মেয়ে বৈশিষ্ট্য হলুদ বাচ্চা সময় ব্যথা মৃত্যু চার্জ অক্সিজেন ভাইরাস আকাশ গতি দাঁত আম বিড়াল কান্না নাক
...