প্রতিদিন মোবাইল, কম্পিউটারের ব্লুলাইট বার্ধক্য ত্বরান্বিত করে

নতুন গবেষণায় জানা যায়, ফোন, কম্পিউটার বা অন্য ইলেক্ট্রনিক্স থেকে বের হওয়া ব্লুলাইট এর দীর্ঘক্ষণ উপস্থিতি সরাসরি চোখে না পড়লেও দীর্ঘায়ুর জন্যে মারাত্মক হুমকিস্বরূপ।

এমনকি Oregon State University-র গবেষণায় দেখা গিয়েছে, লাইট ইমিটিং ডায়োড থেকে নির্গত নীল তরঙ্গদৈর্ঘ্য রেটিনার পাশাপাশি ব্রেন সেল এরও ক্ষতিসাধন করে ( Aging and Mechanisms of Disease জার্নালে গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে)

গবেষণাটি করা হয়েছিল Drosophila Melanogaster এর উপর। কারণ এই ফ্রুটফ্লাইটির সাথে মানুষ এবং অন্যান্য প্রাণীর কোষগত এবং জিনগত অনেক সাদৃশ্য রয়েছে। OSU College of Science এর গবেষক Jaga Giebultowicz এই গবেষণাটি পরিচালনা করেন।


গবেষণাটিতে দেখা যায়, যেসব ফ্রুটফ্লাইগুলোকে প্রতিদিন ১২ ঘণ্টা ব্লুলাইট এবং ১২ ঘণ্টা অন্ধকারে রাখা হয়েছিল তাদের তুলনায় পুরো সময় অন্ধকারে বা ব্লুলাইট ফিল্টারড আলোয় রাখা ফ্রুটফ্লাইগুলো বেশি সময় বেঁচে ছিলো।

 পরীক্ষায় দেখা যায়, প্রথম ক্ষেত্রে ফ্রুটফ্লাইগুলোর রেটিনাল সেল আর ব্রেন নিউরন ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এছাড়াও, ফ্লাইগুলোর দেয়াল বেয়ে উঠার স্বাভাবিক ক্ষমতাও নষ্ট হয়।
গবেষণায় কিছু মিউট্যান্ট ফ্লাই ব্যবহার করা হয়ছিল যেগুলো চোখে দেখতে পেতো না। কিন্তু সেগুলোর ক্ষেত্রেও ব্রেন আর লোকোমোশন ক্ষমতায় নেতিবাচক প্রভাব দেখা যায়,
যেটি প্রমাণ করে সরাসরি চোখের সংস্পর্শে না আসলেও ব্লুলাইটের বেশ ক্ষতিকারক প্রভাব রয়েছে।

Giebultowicz বলেন”আমরা খেয়াল করলাম, লাইট এর উপস্থিতিতে স্ট্রেস-রেসপন্স প্রোটেক্টিভ জিনগুলো ক্রিয়াশীল হয়। তারপর চিন্তা করলাম লাইট এ কিসের উপস্থিতি এতো নেতিবাচক প্রভাব ফেলে আর আলোক বর্ণালীগুলো নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করি।

আর দেখা যায়, দীর্ঘায়ুর পথে অন্য আলোগুলো কিছুটা নেতিবাচক প্রভাব দেখালেও, শুধুমাত্র নীল আলোর উপস্থিতি নাটকীয়ভাবে আয়ু কমিয়ে দিতে পারে”।


Giebultowicz এর ল্যাব এর ফ্যাকাল্টি রিসার্চ অ্যাসিস্ট্যান্ট Eileen Chow বলেন, “গত শতাব্দী জুড়ে মানুষের আয়ু অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে যেহেতু আমরা অনেক রোগের প্রতিকার বের করতে পেরেছি কিন্তু টেকনোলজির অগ্রগতির সাথে আমরা আগের থেকে অনেক বেশি সময় আর্টিফিশিয়াল লাইটের সামনে কাটাচ্ছি।

যেহেতু বিজ্ঞান প্রতিনিয়ত মানুষের জীবনকে সুস্থসবল করার জন্য কাজ করছে, তাই আশা করা যায় নিকট ভবিষ্যতে ক্ষতিকর প্রভাবমুক্ত আলো নিয়ে কাজ করা সম্ভব হবে।”
তার আগ পর্যন্ত, মানুষের সচেতন হতে হবে। একটানা ব্লুলাইটের সামনে থাকা পরিহার করতে হবে। অ্যাম্বারযুক্ত চশমা পড়া যেতে পারে ব্লুলাইট ফিল্টার করার জন্য। এছাড়াও ফোন, ল্যাপটপ এবং অন্য ইলেকট্রনিক ডিভাইসগুলোতে ব্লুলাইট ব্লক করা যেতে পারে।

News Source:

Materials provided by Oregon State University. Original written by Steve Lundeberg. Note: Content may be edited for style and length.

Journal Reference:

1.Trevor R. Nash, Eileen S. Chow, Alexander D. Law, Samuel D. Fu, Elzbieta Fuszara, Aleksandra Bilska, Piotr Bebas, Doris Kretzschmar & Jadwiga M. Giebultowicz. Daily blue-light exposure shortens lifespan and causes brain neurodegeneration in Drosophilanpj Aging and Mechanisms of Disease, 2019 DOI: 10.1038/s41514-019-0038-6

 

কমেন্ট করুন...